Tripura: কর্মচারীরা চক্রান্তকারী, পাপী - নবনিযুক্ত মন্ত্রীর মন্তব্যে রাজ্যজুড়ে ক্ষোভ

গতকাল উদয়পুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রামপ্রসাদ পাল বলেন, আমাদের সরকারের মধ্যে এখনও পাপীরা বসে আছে। তাদের চক্রান্ত চলছে আমাদের সরকারের বিরুদ্ধে। কীভাবে আমাদের সরকার যেন জনতার জন্য কাজ করতে না পারে।
Tripura: কর্মচারীরা চক্রান্তকারী, পাপী - নবনিযুক্ত মন্ত্রীর মন্তব্যে রাজ্যজুড়ে ক্ষোভ
ত্রিপুরার মন্ত্রী রামপ্রসাদ পালছবি সিপিআইএম ত্রিপুরা ফেসবুক পেজের সৌজন্যে

মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবার চার দিনের মাথায় রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের ‘পাপী’ আখ্যা দিলেন বিজেপি-আইপিএফটি জোট সরকারের মন্ত্রী রাম প্রসাদ পাল। দিনকয়েক আগেই রাজ্য বিধানসভার উপাধ্যক্ষ বিশ্ববন্ধু সেন প্রকাশ্য সভায় কর্মচারীদের ‘হাড্ডি ভেঙ্গে দেওয়ার’ উসকানিমূলক মন্তব্য করেছিলেন। যে ঘটনায় ত্রিপুরা জুড়ে বিক্ষোভে নেমেছিলো রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বিভিন্ন সংগঠন।

গতকাল শুক্রবার উদয়পুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রামপ্রসাদ পাল বলেন, আমাদের সরকারের মধ্যে এখনও পাপীরা বসে আছে। তাদেরও একটা চক্রান্ত চলছে আমাদের সরকারের বিরুদ্ধে। কীভাবে আমাদের সরকার যেন জনতার জন্য কাজ করতে না পারে। এ রাজ্যের উন্নয়নমূলক কাজে যাতে বাধা থাকে। সেইজন্য ওই ধরণের কিছু চক্রান্তকারী কর্মচারী আছে। যারা বামফ্রন্টের পাপের দ্বারা সৃষ্টি হয়েছিলো। সেই পাপীদের দ্বারা আমাদের অনেক সময় নষ্ট হয়েছে।

রাজ্যের নতুন মন্ত্রীর এই বক্তব্য নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন শিক্ষক কর্মচারী মহল। তাঁদের বক্তব্য বিজেপি আইপিএফটি জোট সরকার নিজেদের ব্যর্থতার দায় কর্মচারীদের ওপর চাপাতে চেষ্টা করছেন। উসকানিমূলক মন্তব্য করছেন।

রাজ্যের শিক্ষক কর্মচারীমহলের বক্তব্য, ডবল ইঞ্জিন সরকারও এখন অর্থ সঙ্কটে ভুগছে। আগের বামফ্রন্ট সরকারের ঘোষিত কাজই এখনও এই সরকার শেষ করতে পারেনি। ভোটের আগে বিজেপি সপ্তম পে কমিশনের লোভ দেখালেও এখনও তা বিশ বাঁও জলে। একের পর এক গুরুত্বপূর্ণ পদে নিজেদের পছন্দমত অকর্মণ্য লোক বসিয়েছে বিজেপি আইপিএফটি জোট সরকার। রাজ্যের উন্নয়ন স্তব্ধ। দিনের পর দিন সিদ্ধান্তের অভাবে ফাইল আটকে থাকছে সচিবালয়ে। এই অবস্থায় নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে রাজ্য সরকার কর্মচারীদের দোষী করে সাফাই গাইছে।

ত্রিপুরার তথ্যভিজ্ঞ মহলের মতে গত বছর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ্যে সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন। এরপরেই ত্রিপুরা জুড়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের সাংবাদিকরা আক্রান্ত হন। রাজ্যে সাম্প্রতিক সময়ে যেভাবে একের পর এক মন্ত্রী, বিধায়করা শিক্ষক কর্মচারীদের প্রকাশ্যে হুমকি দিচ্ছেন তাতে কর্মচারীদের ওপর আক্রমণের ঘটনা বাড়তে পারে। অবিলম্বে এই ধরণের উসকানিমূলক মন্তব্যের জন্য শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন বলেও তাঁরা মনে করেন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in