আয় বাড়াতে এবার রেল মিউজিয়াম ভাড়া দেওয়া হবে সামাজিক অনুষ্ঠানে - সিদ্ধান্ত রেল বোর্ডের

মিউজিয়ামে রেলের ঐতিহ্যবাহী অনেককিছু সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে। তাই এখানে সামাজিক অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দেওয়া নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।
আয় বাড়াতে এবার রেল মিউজিয়াম ভাড়া দেওয়া হবে সামাজিক অনুষ্ঠানে - সিদ্ধান্ত রেল বোর্ডের
ছবি- সংগৃহীত

রেল মিউজিয়াম ভাড়া দেওয়া হবে সামাজিক অনুষ্ঠানের জন্য।আয় বাড়াতে এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় রেল বোর্ড। এনিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। হাওড়ার রেল মিউজিয়ামে রেলের ঐতিহ্যবাহী অনেককিছু সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে। তাই এখানে সামাজিক অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দেওয়া নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

সম্প্রতি যাত্রীভাড়া এবং মালবহন থেকে রেলের আয় কমেছে। রেল বোর্ডের নির্দেশ অনুযায়ী আয়ের বিকল্প রাস্তা খুঁজতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিভিন্ন ডিভিশনকে। তাই রেলের সম্পদ ব্যবহার করে পূর্ব রেলের হাওড়া ডিভিশন এবার রেল মিউজিয়ামকে বাণিজ্যিক কাজে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পূর্ব রেলের হাওড়া ডিভিশনের ডিআরএম সুমিত নারুলা জানিয়েছেন- রেলের আয় বাড়ানোর জন্য জন্মদিন সহ কিছু সামাজিক অনুষ্ঠানের জন্য রেল মিউজিয়ামকে এবার ভাড়া দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন এ ব্যাপারে কিছুদিন আগে দরপত্র ডাকা হয়। সেই দরপত্রে বেশ কয়েকটি বাণিজ্যিক সংস্থা সাড়াও দেয়। মিউজিয়ামের মধ্যে যে ফাঁকা জায়গা আছে তাতে অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

আর এই সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। যেহেতু রেল মিউজিয়ামের মধ্যে ভারতীয় রেলের ইতিহাস তুলে ধরা হয়েছে তাই সামাজিক অনুষ্ঠানে ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে, এমনটাই মনে করছে শহরবাসীর একাংশ। এখানে রেলের বিভিন্ন মডেলের পুরানো স্টিম ইঞ্জিন, পুরানো মডেলের কোচ, সিগন্যাল, চাকা ও লাইনের যন্ত্রাংশ এবং ট্রেনের দুষ্প্রাপ্য ছবি আছে। মিউজিয়ামের মূল অংশে রয়েছে মিনি হাওড়া স্টেশন, বিভিন্ন কোচের মডেল, রেলের যন্ত্রাংশ দিয়ে তৈরি বিভিন্ন স্থাপত্য এবং আস্ত টয় ট্রেন। রয়েছে সেলুন কার।

একই জায়গার মধ্যে বাগান এবং মিউজিয়াম থাকায় অনুষ্ঠানের ভীড়ে রেলের দুষ্পাপ্য জিনিসগুলির ক্ষতি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ ও রেলের ঐতিহ্যকে ক্ষুন্ন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন রাজ্য সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায়। তিনি বলেন এই সরকার বেচারাম সরকার, সবকিছুই বেচতে চায়। যেভাবে রেল মিউজিয়াম সামাজিক অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দিচ্ছে তার কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন এই সিদ্ধান্ত লজ্জার। মিউজিয়ামে কখনো সামাজিক অনুষ্ঠান হতে পারে না। তিনি প্রশ্ন তোলেন রেলের কি এমন অর্থের প্রয়োজন হল যাতে কিনা মিউজিয়ামকে ভাড়া দিতে হয়? এ ব্যাপারে তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানাবেন বলে জানান।

প্রসঙ্গত, সারা বছরই দেশের ও বিদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অসংখ্য মানুষ এই মিউজিয়াম দেখতে আসেন। ভারতীয় রেলের বিবর্তন জানতে এই মিউজিয়াম পর্যটকদের কাছে খুবই আকর্ষণীয়।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in