কোভিড যুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য আশা কর্মীদের সম্মান জানালো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

জাপান থেকে আশা কর্মীদের শুভেচ্ছা বার্তা জানিয়ে ট্যুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
কোভিড যুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য আশা কর্মীদের সম্মান জানালো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
আশা কর্মীদের মিছিলছবি - সংগৃহীত

করোনা মহামারীতে যেখানে প্রায় সারা দেশ তথা বিশ্ব কার্যত ভাইরাসের করাল গ্রাসের সামনে অসহায় হয়ে পড়েছিল সেখানে নিজেদের জীবন বাজি রেখে সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে ক্রমাগত লড়ে গেছেন আশা কর্মীরা। ঠিক সেই কারণেই তাঁদের এই অসামান্য অবদানকে সম্মান জানিয়ে তাঁদের স্বীকৃতি দিলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। প্রায় ১০ লক্ষ আশা কর্মীদের সম্মান জানিয়েছে WHO।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভারতের গ্রামীণ অঞ্চলগুলিতে প্রধানত আশা কর্মীরাই স্বাস্থ্য পরিষেবার ক্ষেত্রে অগ্রাণী ভূমিকা পালন করেন। এই কারণেই রবিবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে সম্মানিত হয়েছেন তাঁরা।

এই প্রসঙ্গে রবিবার নিজস্ব টুইটে WHO লেখে, "স্বীকৃত সোশ্যাল হেলথ অ্যাক্টিভিস্ট ওয়ার্কার্স (আশা) ১ মিলিয়নেরও বেশি মহিলা স্বেচ্ছাসেবক নিয়ে কাজ করে ভারতে। স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সাথে বিভিন্ন সম্প্রদায়কে সংযুক্ত করার এবং গ্রামীণ দারিদ্রের মধ্যে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা পরিষেবাগুলি পৌঁছে দিতে কাজ করেন আশাকর্মীরা। এই পরিষেবা সর্বস্তরে পৌঁছে দেওয়া নিশ্চিত করার জন্য তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার জন্য সম্মান জানাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।"

আশা কর্মীদের সম্মানিত হওয়ার ব্যাপারে আনন্দিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সোমবার জাপান থেকে নিজস্ব টুইটবার্তায় তিনি লেখেন, "আশা কর্মীদের সমগ্র দল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালকের গ্লোবাল হেলথ লিডারস অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হওয়ায় আনন্দিত। সকল আশা কর্মীদের অভিনন্দন। তাঁরা একটি সুস্থ ভারত নিশ্চিত করতে কাজ করে চলেন। তাঁদের নিষ্ঠা ও দৃঢ়তা প্রশংসনীয়।"

উল্লেখ্য, কোয়াড নেতাদের শীর্ষ সম্মেলনে যোগদান করার জন্য রবিবার ভোরেই জাপান পৌঁছেছেন মোদী। সেখান থেকেই সোমবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সম্মান প্রদান প্রসঙ্গে মহিলা আশা কর্মীদের উদ্দেশ্যে ট্যুইটের মাধ্যমে প্রশংসনীয় বার্তা দিয়েছেন তিনি।

আশা কর্মীদের মিছিল
Forbes India-র প্রভাবশালী মহিলাদের তালিকায় ওড়িশার আদিবাসী আশাকর্মী মাতিলদা কুল্লু

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in