দিল্লি সীমান্তে আন্দোলনরত কোনও কৃষকের মৃত্যুর তথ্য নেই কেন্দ্রের কাছে, সংসদে দাবি কৃষিমন্ত্রীর

অল ইন্ডিয়া কিষান সভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা বিস্ময় প্রকাশ করে দাবি করেন, এখনও পর্যন্ত আন্দোলনরত ৫৮২ জন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে দিল্লির বিভিন্ন সীমান্তে।
দিল্লি সীমান্তে আন্দোলনরত কোনও কৃষকের মৃত্যুর তথ্য নেই কেন্দ্রের কাছে, সংসদে দাবি কৃষিমন্ত্রীর
আন্দোলনরত কৃষকফাইল চিত্র - সংগৃহীত

কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনরত কৃষকদের মৃত্যু বা অসুস্থ হওয়ার কোনও রেকর্ড নেই। মঙ্গলবার সংসদে এমনটাই দাবি করেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর। তোমর জানিয়েছেন, কৃষক ইউনিয়নের কাছে সরকারের তরফ থেকে বার বার আলোচনার মাঝেই আন্দোলনরত বয়স্ক কৃষক, মহিলা ও শিশুদের ফিরে যেতে আবেদন করা হয়েছিল। একদিকে কোভিড, অন্যদিকে প্রচণ্ড ঠান্ডা - এই পরিস্থিতির কথা ভেবেই সরকার আবেদন করেছিল।

লোকসভায় বেশ কিছু সাংসদের প্রশ্নের উত্তরে সংসদে লিখিত আকারে কৃষক মৃত্যুর বিষয়টি জানান তোমর। তিনি দাবি করেন, কৃষক মৃত্যুর যেমন কোনও রিপোর্ট নেই, তেমনই কোনও কৃষকের পরিবারের তরফে ক্ষতিপূরণের আবেদনও করা হয়নি এখন পর্যন্ত। উল্লেখ্য, কৃষিমন্ত্রীর এমন মন্তব্য অবাক হয়ে অল ইন্ডিয়া কিষান সভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা বিস্ময় প্রকাশ করে দাবি করেন, এখনও পর্যন্ত আন্দোলনরত ৫৮২ জন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে দিল্লির বিভিন্ন সীমান্তে। তিনি অভিযোগ করেন, গণতান্তিকভাবে নির্বাচিত সরকার দেশের নাগরিকের দেখভাল করে থাকে। কিন্তু এই সরকার দেশের ৮০ কোটি কৃষককে শত্রুর মনোভাবাপন্ন নজরে দেখছে।

এদিকে কৃষিমন্ত্রী এদিন ফের একবার দাবি করেন, সরকার কৃষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে তৈরি। এখনও পর্যন্ত মোট ১১ দফায় কৃষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছে সরকার। কিন্তু এইসব বৈঠক ফলপ্রসূ হয়নি। তোমর আরও বলেন, কৃষকরা কৃষি আইন প্রত্যাহার ছাড়া আর কোনও কিছু নিয়ে কথা বলতেই রাজি হয়নি। কিন্তু সরকার সবসয়ই কৃষকদের সঙ্গে আলোচনার মুখিয়ে রয়েছে। যাতে সমস্যার সমাধান সম্ভব হয়। সংযুক্ত কিষান মোচার্র তরফে দাবি করা হয়েছে, এই আইনটি প্রত্যাহারের বিষয়ে সরকার আরও বেশি নমনীয় হোক।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in