দলীয় নেতার অধীনে মহিলারা নিরাপদ নয় - অভিযোগ তুলে দল ছাড়লেন BJP নেত্রী গায়ত্রী রঘুরাম

মঙ্গলবার একের পর এক টুইট বার্তায় গায়ত্রী রঘুরাম বলেন: "আমি মহিলাদের জন্য সম্মান, সমান অধিকার এবং তদন্ত চেয়ে তামিলনাড়ু বিজেপি থেকে পদত্যাগ করার দুঃখজনক সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
বিজেপি নেত্রী গায়ত্রী রঘুরাম
বিজেপি নেত্রী গায়ত্রী রঘুরামফাইল ছবি - গ্রাফিক্স আকাশ

অভিনেতা-রাজনীতিবিদ গায়ত্রী রঘুরাম, দলের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে ইস্তফা দিলেন৷ অতি সম্প্রতি তামিলনাড়ুতে পরপর দুই বিজেপি নেতার দলত্যাগে রাজ্য বিজেপিতে সঙ্কট দেখা দিয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

মঙ্গলবার একের পর এক টুইট বার্তায় দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন গায়ত্রী রঘুরাম। তিনি বলেন: "আমি মহিলাদের জন্য সম্মান, সমান অধিকার এবং তদন্ত চেয়ে তামিলনাড়ু বিজেপি থেকে পদত্যাগ করার দুঃখজনক সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আন্নামালাইয়ের নেতৃত্বে মহিলারা নিরাপদ নয়। আমি একজন বহিরাগত হিসেবে ট্রোলড হওয়াই ঠিক মনে করি।”

তিনি আরও লেখেন, "আমি আমার হৃদয় ও বিবেক থেকে হিন্দু ধর্মে দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস রাখি। এর জন্য কোনো রাজনৈতিক দলে যোগ দেবার দরকার নেই। আমি বরং ঈশ্বর ও ধর্মের সন্ধানে মন্দিরে যাব। ঈশ্বর সর্বত্র আছেন। ঈশ্বর আমার সাথে আছেন।"

বিজেপির তামিলনাড়ু ইউনিটের সভাপতি, কে. আন্নামালাই ২০২২ সালের নভেম্বর মাসে ৬ মাসের জন্য রঘুরামকে সমস্ত দলীয় পদ থেকে বরখাস্ত করেছিলেন৷ তৎকালীন ওবিসি মোর্চা রাজ্য নেতা তিরুচি সুরিয়ার সাথে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর বিতণ্ডার পরে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

এর আগে তামিলনাড়ু বিজেপি সংখ্যালঘু মোর্চার নেত্রী ডেইজি সারিনের সাথে সুরিয়ার চ্যাট সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস হয়ে যায়। যেখানে তিনি সারিনকে মৌখিকভাবে গালিগালাজ করেছিলেন। এই ঘটনার পর সুরিয়া পার্টি নেতৃত্বের তিরস্কারের মুখে পড়েন।

গায়ত্রী রঘুরাম বিজেপির অন্যান্য রাজ্য এবং বিদেশী তামিল উন্নয়ন শাখার রাজ্য সভাপতি ছিলেন।

উল্লেখযোগ্য ভাবে, সুরিয়া, যিনি ডিএমকে নেতা তিরুচি শিবের ছেলে, তিনিও দল থেকে পদত্যাগ করেছেন এবং পার্টি-রাজ্য সাংগঠনিক সম্পাদক, কেশব বিনয়াগমের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছেন।

দুই বিশিষ্ট তরুণ নেতার পদত্যাগের ফলে, তামিলনাড়ু বিজেপি একটি সঙ্কটে পড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। রাজনীতিবিদ হওয়ার আগে আইপিএস অফিসার থাকা আন্নামালাইয়ের পুলিশের মত দল চালানোর পদ্ধতি নিয়ে ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ু বিজেপিতে প্রশ্ন উঠেছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in