Supreme Court: শীর্ষ আদালতের নির্দেশ অবমাননা - বিজেপি, কংগ্রেস সহ ৮ রাজনৈতিক দলের জরিমানা

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে সুপ্রিম কোর্ট নির্বাচিত প্রার্থীদের ফৌজদারি রেকর্ড প্রকাশ্যে আনার বিষয়ে যে নির্দেশ দিয়েছিলো তা না মানার জন্য এই জরিমানা করা হয়েছে।
Supreme Court: শীর্ষ আদালতের নির্দেশ অবমাননা - বিজেপি, কংগ্রেস সহ ৮ রাজনৈতিক দলের জরিমানা
সুপ্রীম কোর্টফাইল ছবি সংগৃহীত

রাজনীতিকে অপরাধমুক্ত করার জন্য সুপ্রিম কোর্ট মঙ্গলবার নটি প্রধান রাজনৈতিক দলকে আদালত অবমাননার জন্য দোষী সাব্যস্ত করেছে এবং তাদের মধ্যে কংগ্রেস এবং বিজেপি সহ আট রাজনৈতিক দলকে জরিমানা করেছে। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে সুপ্রিম কোর্ট নির্বাচিত প্রার্থীদের ফৌজদারি রেকর্ড প্রকাশ্যে আনার বিষয়ে যে নির্দেশ দিয়েছিলো তা না মানার জন্য এই জরিমানা করা হয়েছে।

বিচারপতি আর এফ নরিমন এবং বিচারপতি বি আর গাভাইয়ের বেঞ্চ এদিন জানায়: ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ তারিখে আমাদের আদেশের অবমাননার জন্য যদিও আমরা উত্তরদাতা নং ৩ থেকে ৯, ১১ এবং ১২কে দোষী সাব্যস্ত করেছি তবু আমরা এই বিষয়ে নমনীয় দৃষ্টিভঙ্গি নিতে আগ্রহী। কারণ আমাদের নির্দেশ জারির পর এটাই ছিলো প্রথম নির্বাচন।"

এই নির্দেশে রাজনৈতিক দলগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে যে, ভবিষ্যতে তাদের সতর্ক থাকতে হবে এবং নির্বাচন কমিশনের পাশাপাশি ইস্যু করা নির্দেশাবলী যথাযথভাবে অনুসরণ করার বিষয়ে নিশ্চিত করতে হবে। "আমরা উত্তরদাতা নং ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৭ এবং ১১ কে ইসিআই দ্বারা তৈরি অ্যাকাউন্টে ১ লক্ষ টাকা করে জমা দেবার নির্দেশ দিচ্ছি। আমাদের পূর্ববর্তী নির্দেশের অনুচ্ছেদ ৭৩ (iii)-এ এই উল্লেখ করা হয়েছে। এই রায়ের তারিখ থেকে আগামী ৮ সপ্তাহের মধ্যে ১ লক্ষ টাকা করে জমা দিতে হবে। এই তালিকায় আছে বিজেপি, কংগ্রেস সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল।

বেঞ্চ আরও জানিয়েছে: "উত্তরদাতা ৮ নং (ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি-মার্কসবাদী) এবং ৯ (জাতীয়তাবাদী কংগ্রেস পার্টি) যেহেতু আদালতের এই নির্দেশাবলী একদমই মেনে চলেনি, তাই আমরা এই দুই রাজনৈতিক দলকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্ধারিত অ্যাকাউন্টে ৫ লক্ষ টাকা করে জমা দেবার নির্দেশ দিচ্ছি।

সুপ্রিম কোর্ট নির্বাচন কমিশনকে এমন একটি মোবাইল অ্যাপ তৈরি করতে বলেছে যাতে ভোটাররা সহজেই সমস্ত তথ্য পেতে পারে। নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে প্রার্থীদের দ্বারা তাদের অপরাধমূলক ঘটনা সম্পর্কে প্রকাশিত তথ্য সম্বলিত এমন একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে হবে, যাতে এক ধাক্কায় প্রতিটি ভোটার সহজেই তার মোবাইল ফোনে এই ধরনের তথ্য পেতে পারে।

এদিনের উল্লেখযোগ্য নির্দেশে সুপ্রিম কোর্ট আরও জানিয়েছে, হাইকোর্টের অনুমতি ছাড়া কোনো সাংসদ বা বিধায়কের বিরুদ্ধে থাকা অপরাধমূলক মামলা প্রত্যাহার করা যাবেনা। সুপ্রিম কোর্টের বক্তব্য অনুসারে, অপরাধমূলক মামলা থাকা সত্ত্বেও রাজনৈতিক দলগুলো কেন তাদের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করছে তাও জানতে চাওয়া হয়। এছাড়াও দলের ওয়েবসাইটে কেন অপরাধমূলক ঘটনা থাকা সত্ত্বেও ওই প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হল তা জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও এই প্রার্থীদের সম্পর্কে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি দেবার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in