সুরাতে বিজেপির পার্টি অফিসের বাইরে লম্বা লাইন করোনার টিকা নেওয়ার জন্য

বেলা ১১ টা নাগাদ বিজেপি ইউথ-এর সদস্যরা বিজেপির প্রতীক দেওয়া গেরুয়া প্যাকেটে করে ইঞ্জেকশন বিলি করতে থাকেন
সুরাতে বিজেপির পার্টি অফিসের বাইরে লম্বা লাইন করোনার টিকা নেওয়ার জন্য
ফাইল ছবি

সুরাত, ১৩ এপ্রিল: বাড়তে থাকা করোনা সংক্রমণের পাশাপাশি টিকা ঘাটতিও এখন বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সুরাতে বিজেপির প্রধান কার্যালয়ের বাইরে রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন নেওয়ার লম্বা লম্বা লাইন দেখতে পাওয়া যাচ্ছে। সুরাতের বাসিন্দা মীনা প্যাটেল (৫০) উধনাতে বিজেপির কার্যালয়ে আসেন সকাল ৬টায় রেমডেসিভির একটি ডোজ নেওয়ার জন্য। তাঁর মা মারুবেন (৭৬) উধনারই একটি হাসপাতালে ভর্তি করোনা সংক্রমিত হয়ে। ১০০ জনের লম্বা লাইনে ১০১ নম্বরে ছিল মীনা প্যাটেলের লাইন।

রেমডেসিভির শুধু বিজেপি অফিসের বাইরেই পাওয়া যাচ্ছে, তাই লম্বা লাইন দিয়ে হলেও তিনি ইঞ্জেকশন নিতে আসেন। সকাল ১০টা ৪০ মিনিট নাগাদ একটি বেসরকারি গাড়ি করে রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন আসে। প্রত্যেক বাক্সে ৪৮টি করে ১০০ মিলিগ্রামের ইঞ্জেকশন ছিল। বিজেপি যুবর পক্ষ থেকে এই বক্সগুলো নিয়ে পার্টি অফিসের ভিতরে যাওয়া হয়।

১১ টা নাগাদ বিজেপি ইউথ-এর সদস্যরা বিজেপির প্রতীক দেওয়া গেরুয়া প্যাকেটে করে ইঞ্জেকশন বিলি করতে থাকেন। প্যাকেটের গায়ে লাগানো নাম্বারের টোকেনও দেওয়া হয়। এই টোকেনে বিজেপির আইটি দপ্তরের স্থানীয় প্রধান বিজয় রাদাদিয়ার নম্বরও দেওয়া হয়। সেখানে প্রত্যেককে বিস্কুট ও জল দেওয়া হচ্ছিল। এরপরেও আরও ঘণ্টাখানেক দাঁড়িয়ে থাকার পর ৫০ জন করে ভিতরে ঢুকিয়ে ইঞ্জেকশন দেওয়া হয়।

যেখানে রাজ্য জুড়ে টিকার আকাল, সেখানে শাসক দলের পক্ষ থেকে এই টিকা বিলি কতোটা যুক্তিসঙ্গত সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। বিরোধিরা প্রশ্ন তুলছে- যে দায়িত্ব রাজ্য সরকারের নেওয়া উচিৎ- সেই কাজ ঘুরপথে বিজেপিকে দিয়ে করানো হচ্ছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in