আসামে বিজ্ঞাপন নিয়ে প্রশ্ন - ৮ সংবাদপত্র, BJP সভাপতি, মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের কংগ্রেসের

আপার আসামের সবকটি আসনে বিজেপির জয়ের পূর্বাভাস দিয়ে করা বিজ্ঞাপনকে ছদ্ম খবর আকারে প্রকাশ করার জন্য এই অভিযোগ দায়ের করেছে কংগ্রেস। গত ২৭ মার্চ এই সবকটি আসনে নির্বাচন হয়েছে।
আসামে বিজ্ঞাপন নিয়ে প্রশ্ন - ৮ সংবাদপত্র, BJP সভাপতি, মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের কংগ্রেসের
ছবি সংগৃহীত

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা, আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনেয়াল, বিজেপির রাজ‍্য সভাপতি রণজিৎ কুমার দাস এবং আটটি শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্রের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করল কংগ্রেস। আপার আসামের সবকটি আসনে বিজেপির জয়ের পূর্বাভাস দিয়ে করা বিজ্ঞাপনকে ছদ্ম খবর আকারে প্রকাশ করার জন্য এই অভিযোগ দায়ের করেছে কংগ্রেস। গত ২৭ মার্চ এই সবকটি আসনে নির্বাচন হয়েছে।

১৯৫১ সালের জনপ্রতিনিধি আইনের ১২৬(এ) ধারা অনুযায়ী মডেল কোড অফ কন্টাক্ট লঙ্ঘনের অভিযোগে রবিবার রাতে দিসপুর থানায় এই অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আসাম প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির আইন বিভাগের চেয়ারম্যান নীরন বোরাহ একথা জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, "১৯৫১ সালের জনপ্রতিনিধি আইনের অধীনে থাকা মডেল কোড অফ কন্টাক্ট, নির্বাচন কমিশনের সাম্প্রতিক নির্দেশনা এবং মিডিয়া পলিসির মারাত্মক লঙ্ঘন করেছেন বিজেপির নেতা ও সদস্যরা। নিজেদের পরাজয় অনিবার্য তা বুঝতে পেরে গোটা রাজ‍্য জুড়ে ভোটারদের প্রভাবিত করতে বেআইনী ও অসাংবিধানিক পদ্ধতি অবলম্বন করছে বিজেপি।"

ছবি সংগৃহীত

তিনি আরো বলেছেন, "দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ের ভোটারদের ধোঁকা দেওয়ার জন্য পূর্বপরিকল্পিত ষড়যন্ত্র অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রী, বিজেপির জাতীয় সভাপতি, রাজ্য প্রধান এবং দলের অন্যান্য সদস্যরা বিভিন্ন সংবাদপত্রের প্রথম পাতায় বিজ্ঞাপনের আড়ালে আপার আসামের সমস্ত কেন্দ্রে বিজেপি জিতবে বলে দাবি করেছেন। ভোটারদের মনকে প্রভাবিত করার উদ্দেশ্যে এই বিজ্ঞাপনগুলো উপস্থাপন করা হয়েছে। এই ইচ্ছাকৃত, বিদ্বেষপরায়ণ বিজ্ঞাপনের সেটগুলো ১৯৫১ সালের জনপ্রতিনিধি আইনের ১২৬ (এ) ধারার স্পষ্ট লঙ্ঘন, যার শাস্তি দু'বছরের জেল এবং জরিমানা।"

এছাড়াও ২৭ মার্চ সকাল ৭টা থেকে ২৯ এপ্রিল সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা পর্যন্ত নির্বাচনের ফলাফল সম্পর্কিত কোনোপ্রকার পূর্বাভাস প্রচারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল নির্বাচন কমিশন।‌ নীরন বোরার অভিযোগ, এই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে বিজেপি সেই নির্দেশও লঙ্ঘন করেছে।

যে আটটি সংবাদপত্রে এই বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছিল সেগুলো হলো - দ্য আসাম ট্রিবিউন, অসমিয়া প্রতিদিন, আমার অসম, নিয়মিয়া বার্তা, অসমিয়া খবর, দৈনিক অসম, দৈনিক যুগশঙ্খ এবং দৈনিক পূর্বোদয়। আগামী ১ এপ্রিল দ্বিতীয় দফায় ৩৯টি আসনে এবং ৬ এপ্রিল তৃতীয় তথা শেষ দফায় ৪০টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে আসামে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in