পুলিৎজার জয়ী সাংবাদিক সান্না মাট্টুর বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা, নিন্দায় সরব NWM India

উদ্বেগের সুরে বলা হয়েছে, 'আমরা এটি লক্ষ করছি, যারা ভারতের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে অস্বস্তিকর সত্য প্রকাশ করেছে, তাঁদের উপর কঠোর মনোভাব দেখাচ্ছে সরকার।'
পুলিৎজার জয়ী সাংবাদিক সান্না মাট্টুর বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা, নিন্দায় সরব NWM India
পুলিৎজার জয়ী সাংবাদিক সান্না মাট্টুর বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা, নিন্দায় সরব NWM Indiaছবি সংগৃহীত

পুলিৎজার জয়ী কাশ্মীরের প্রখ্যাত চিত্র সাংবাদিক সান্না ইরশাদ মাট্টু (Sanna Irshad Mattoo)-কে দিল্লি বিমানবন্দরে আটকে দেওয়ার অভিযোগ উঠলো অভিবাসন দফতরের বিরুদ্ধে। বৈধ ফরাসি ভিসা থাকা সত্ত্বেও শনিবার দিল্লি থেকে প্যারিসে যেতে দেওয়া হয়নি তাঁকে বলে অভিযোগ করেছেন সাংবাদিক।

সান্নার অভিযোগ, কেন তাঁকে ফ্রান্সে যেতে দেওয়া হবে না, তার কোনও কারণ জানায়নি অভিবাসন দফতর। প্যারিসে একটি বই প্রকাশের অনুষ্ঠান এবং চিত্র প্রদর্শনীতে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ ছিল এই চিত্র সাংবাদিকের।

টুইটারে সান্না মাট্টু লিখেছেন, ‘একটি বই প্রকাশ ও ফটোগ্রাফি প্রদর্শনীতে যোগ দিতে আজ আমার দিল্লি থেকে প্যারিস যাওয়ার কথা ছিল। দশজন সেরেন্ডিপিটি আর্লস (Serendipity Arles) গ্র্যান্ট জয়ীর মধ্যে একজন হিসেবে এই সুযোগ পেয়েছিলাম। সঙ্গে ফ্রান্সের ভিসাও (French Visa) ছিল।’

একইসঙ্গে তিনি জানান, ‘দিল্লি বিমানবন্দরে (Delhi Airport) অভিবাসন দপ্তর আমাকে আটকে দেয়। ওরা আমাকে কোনও কারণও দেখায়নি। কিন্তু আমি দেশের বাইরে যেতে পারব না।’

শ্রীনগরের বাসিন্দা সান্না আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা ‘রয়টার্স’-এর চিত্র সাংবাদিক। ২০২২ সালের মে মাসে পুলিৎজার পুরস্কার জিতেছেন তিনি। ভারতে মহামারী করোনাকালের ভয়াবহ চিত্র তুলে রয়টার্সের যে 'টিম' আন্তর্জাতিক মহলে সাড়া আলোড়ন ফেলেছিল, সেই টিমে ছিলেন কাশ্মীরি কন্যা সান্না। এছাড়া ছিলেন প্রয়াত সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকী, অমিত ডেভ এবং আদনান আবিদি।

সান্না ইরশাদ মাট্টু'র সাথে হওয়া এই ঘটনায় উদ্বেগের সুরে Network of Women in Media, India জানিয়েছে, 'আমরা এটি লক্ষ করছি, যারা ভারতের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে অস্বস্তিকর সত্য প্রকাশ করেছে, তাঁদের উপর কঠোর মনোভাব দেখাচ্ছে সরকার।'

একইসঙ্গে, NWMI জানিয়েছে, 'সান্না'র বিদেশ ভ্রমনের অধিকার আছে। আমাদের সদস্য এবং কাশ্মীরি ফটোসাংবাদিককে যেভাবে ভারতীয় অভিবাসন দফতর বাধা দিয়েছে, আমরা তার নিন্দা জানাই।'

তবে এই তালিকায় সান্নাই প্রথম নাম নয়। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে কাশ্মীরী সাংবাদিক গোহর গিলানিকেও (Gowhar Geelani) দিল্লি বিমানবন্দরে অভিবাসন কর্মীরা আটকে দিয়েছিলেন। সেসময় জার্মানি যাওয়ার কথা ছিল তাঁর।

গতবছর একটি মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াতে যাওয়ার পথে একই অভিজ্ঞতা হয় প্রাক্তন সাংবাদিক ও শিক্ষাবিদ জাহিদ রফিকের (Zahid Rafiq)। বিদেশ যাত্রার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়েছেন উপতক্যার সাংবাদিক রুওয়া শাহও (Ruwa Shah)।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in