চন্দীরা প্রিয়ঙ্গা
চন্দীরা প্রিয়ঙ্গা

Puducherry: পুরুষশাসিত রাজনীতিতে চূড়ান্ত বৈষম্য! পদত্যাগ বিজেপি জোট সরকারের একমাত্র মহিলা মন্ত্রীর

People's Reporter: পুদুচেরির AINRC-BJP জোট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী এন রঙ্গস্বামীর কাছে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন এস চন্দীরা প্রিয়ঙ্গা।

জাতি এবং লিঙ্গ বৈষম্যের অভিযোগে মন্ত্রীপদ ছাড়লেন পুদুচেরির একমাত্র মহিলা মন্ত্রী এস চন্দীরা প্রিয়ঙ্গা। দীর্ঘদিন ধরে বৈষম্যের শিকার হওয়ার পর বুধবার পুদুচেরির অল ইন্ডিয়া এনআর কংগ্রেস-বিজেপি জোট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী এন রঙ্গস্বামীর কাছে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন তিনি। পুদুচেরির পরিবহণ, তফশিলি জাতি কল্যাণ এবং শিল্প ও সংস্কৃতি মন্ত্রী ছিলেন প্রিয়ঙ্গা।

২০২১ সালে পুদুচেরির নেদুনগাড়ু কেন্দ্রের বিধায়ক প্রিয়ঙ্গা ওই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মন্ত্রিসভার ৪০ বছরের ইতিহাসে প্রথম মহিলা মন্ত্রী হন। বিধানসভা নির্বাচনে তিনি নেদুনগাড়ুর সংরক্ষিত কেন্দ্র কারাইকাল থেকে AINRC টিকিটে লড়ে ভোটে জয় পান। প্রাথমিকভাবে এন রঙ্গস্বামীর নেতৃত্বাধীন AINRC-BJP জোট সরকারের পরিবহণ মন্ত্রকের দায়িত্ব পান দলিত নেত্রী প্রিয়ঙ্গা। বুধবার নিজের ব্যক্তিগত সহকারীর হাত দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠান তিনি। পাশাপাশি, সেই পদত্যাগপত্রের একটি কপি টুইটারে (বর্তমানে X) প্রকাশ করে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম ও প্রধানমন্ত্রী মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সহ বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের কাছেও পৌঁছে দেন।

নিজের পদত্যাগপত্রে প্রিয়ঙ্গা জানিয়েছেন, “দীর্ঘদিন ধরে আমাকে টার্গেট করা হচ্ছিল। এবার সীমা পেরিয়ে যাওয়ায় আমি আর এটা সহ্য করতে পারছি না।” সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে এই বিষয়ে ৩৪ বছর বয়সী ওই প্রাক্তন মন্ত্রী জানিয়েছেন, “আমাদের সমাজে নারীকে শুধুমাত্র নারী হিসেবেই বিবেচনা করা হয়। আপনি শিক্ষিত হতে পারেন, এমনকি বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত পরিবার থেকেও আসতে পারেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও পুরুষশাসিত এই রাজনৈতিক জগৎ এমনভাবে আপনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করবে, যাতে আপনি সম্পূর্ণভাবে ভেঙে পড়েন। আপনি ভালো কাজ করলেও বা ভালো কাজ করার জন্য সক্ষম হলেও এখানে একজন মেয়ে হয়ে আপনি কখনই সম্মান পাবেন না।”

তিনি আরও জানিয়েছেন, “রাজনীতিতে আপনি মহিলা না পুরুষ কিংবা আপনি কোত্থেকে উঠে এসেছেন, এগুলো কেন প্রয়োজনীয়? মানুষের জন্য আপনি কাজ করছেন কি না বা কাজ করার যোগ্য কি না, সেটাই তো আসল গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হওয়া উচিত।”

পদত্যাগের পর ফুরফুরে মেজাজে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রাক্তন মন্ত্রী জানান, “পদত্যাগ করার পর আমি এখন অনেকটাই স্বাধীন। এখন যারা আমার উপর আস্থা রেখেছিলেন, সেইসব মানুষের জন্য কাজ করতে আমার কোনও বাধা রইল না।”

GOOGLE NEWS-এ Telegram-এ আমাদের ফলো করুন। YouTube -এ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in