PMFBY: শস্য বিমা থেকে সরকারি সংস্থার তুলনায় দ্বিগুণ মুনাফা লুটেছে বেসরকারী বিমা কোম্পানিগুলি

২০১৮-১৯ এবং ২০১৯-২০ সালেও একই ছবি দেখা গেছিল। এই দুই অর্থ বছরে এই প্রকল্পে ২,৫০৬ কোটি টাকা লোকসানের মুখ দেখে পাঁচ সরকারী বিমা সংস্থা। অন্যদিকে, এই সময়েই ৯,২৭৮ কোটি লাভ করে বেসরকারী বিমা কোম্পানিগুলি।
প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনার বিজ্ঞাপন
প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনার বিজ্ঞাপনছবি প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনার ওয়েবসাইটের সৌজন্যে

কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ৭ বছর পার হয়ে গেলেও এখন তা হয়নি। উল্টে, গত পাঁচ বছরে শস্য বীমা প্রকল্পের মাধ্যমে সরকারি সংস্থার তুলনায় নিজেদের মুনাফা দ্বিগুণ করেছে বেসরকারি বিমা কোম্পানিগুলি।

কেন্দ্রীয় কৃষি বিভাগের তথ্যে জানা যাচ্ছে, ২০১৬-১৭ থেকে ২০২০-২১ অর্থ বছরের মধ্যে, অর্থাৎ গত পাঁচ বছরে প্রধানমন্ত্রী শস্য বিমা যোজনা (PMFBY) থেকে ২৪,৩৫০ কোটি মুনাফা করেছে ১০ টি বেসরকারী বিমা কোম্পানি। এই কোম্পানিগুলির সঙ্গে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের (NDA) সরকারের সঙ্গে গভীর সম্পর্ক রয়েছে।

আর অন্যদিকে, একই সময়কালে পাঁচটির মধ্যে দুটি সরকারী মালিকানাধীন বিমা সংস্থা ৩,৩৪৪ কোটি টাকা লোকসান করেছে।

২০১৮-১৯ এবং ২০১৯-২০ সালেও একই ছবি দেখা গেছিল। এই দুই অর্থ বছরে এই প্রকল্পের অধীনে ২,৫০৬ কোটি টাকা লোকসানের মুখ দেখে পাঁচটি সরকারী বিমা সংস্থা। অন্যদিকে, এই সময়েই ৯,২৭৮ কোটি লাভ করে বেসরকারী বিমা কোম্পানিগুলি।

২০১৬-১৭ সালে প্রথম চালু হয় প্রধানমন্ত্রী শস্য বিমা যোজনা (PMFBY)। উদ্দেশ্য ছিল প্রাকৃতিক দুর্যোগ, কীটপতঙ্গ এবং রোগের জেরে যদি ফসলের কোনও ক্ষতি হয়, সেক্ষেত্রে কৃষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা। কেন্দ্রীয় সরকার এই প্রকল্পের অধীনে ১৩ টি বেসরকারী বিমা কোম্পানিসহ মোট ১৮ টি বিমা সংস্থাকে তালিকাভুক্ত করেছে। গত সাত বছর ধরে এই বিমা কোম্পানি বা সংস্থার মাধ্যমের আর্থিক সহয়তা পেয়ে আসছে কৃষকেরা।

PMFBY- প্রকল্পের অধীনে, খরিফ শস্যের জন্য ২%, রবি শস্যের (শীতকালীন ফসল) জন্য ১.৫% এবং বাণিজ্যিক ভাবে চাষবাসের জন্য ৫% প্রিমিয়াম দিতে হয় কৃষকদের। এই শস্য বীমার প্রিমিয়ামে প্রচুর ভর্তুকি দেওয়া হয়। এই খরচ বহন করে কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকার।

কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর রাজ্যসভায় লিখিত জবাবে জানান, 'এই প্রকল্পের সূচনা থেকে ২০২১-২২ সালের খরিফ মরসুম পর্যন্ত, এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকদের প্রতি হেক্টরে ৪,১৯০ টাকা করে দেওয়া হয়েছে।'

তথ্যের বিশ্লেষণ করে জানা যাচ্ছে, ২০১৬-১৭ থেকে ২০২০-২১ সালের মধ্যে সরকারী এবং বেসরকারী, উভয় বিমা সংস্থাগুলি মোট প্রিমিয়াম হিসাবে ১,৩৮,৩১২ কোটি টাকা পেয়েছে। এর মধ্যে কৃষকদের অংশ ছিল ১৫.৫%, রাজ্যগুলির অংশ ছিল ৪৩.৪ % এবং কেন্দ্রীয় সরকারের অংশ ছিল ৪১.১%৷

সুনির্দিষ্টভাবে বলতে গেলে, গ্রস প্রিমিয়াম হিসাবে বেসরকারী বীমা কোম্পানিগুলি ৬৯,৬৯৭ কোটি টাকা পেয়েছে। কৃষকদের ক্ষতিপূরণের মাত্রা অনুযায়ী মোট ৪৫,৩১৭ কোটি টাকা প্রদান করেছে। আর এই প্রিমিয়াম থেকে সরাসরি লাভ করেছে ২৪,৩৫০ কোটি টাকা।

অন্যদিকে, সরকার-চালিত বিমা সংস্থাগুলি গ্রস প্রিমিয়াম হিসাবে ৬৮,৬৪৫ কোটি টাকা পেয়েছে। গত পাঁচ বছরে তাঁরা কৃষকদের আবেদনের ভিত্তিতে ৫৬,৭২৮ কোটি টাকা দিয়েছে। প্রিমিয়াম থেকে তাদের মুনাফা হয়েছে ১১,৯১৭ কোটি টাকা। যার দ্বিগুণ লাভ (২৪,৩৫০ কোটি টাকা) করেছে বেসরকারী বিমা কোম্পানিগুলি।

- with inputs from NewsClick

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in