হাসপাতাল নয়, অহমিকা মেটাতে প্রাসাদ নির্মাণকেই প্রাধান্য দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী - ইয়েচুরি

"আপনারা বৈজ্ঞানিক পরামর্শ প্রত্যাখ্যান করেছেন। প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নীরব ভঙ্গিতে লুকিয়ে আছেন। তারা নীরবতা ভেঙ্গে বেরিয়ে আসুন।"
হাসপাতাল নয়, অহমিকা মেটাতে প্রাসাদ নির্মাণকেই প্রাধান্য দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী - ইয়েচুরি
ফাইল ছবি ...

দেশের বর্তমান কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে কাজ করার সময় এসেছে। কিন্তু আমাদের প্রধানমন্ত্রী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এখনও নীরব। এই নীরবতা থেকে আপনারা বেরিয়ে আসুন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে আবেদন জানালেন সিপিআইএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।

দেশের মহামারী ভয়াবহতা উল্লেখ করে তিনি বলেন, পরপর চার দিন প্রায় চার লক্ষ করে মানুষ করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। সোমবার সংক্রমিত হয়েছেন তিন লক্ষ ৬১ হাজার মানুষ। দ্বিতীয় মহামারীতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ২৬ লক্ষ। মারা গিয়েছেন দু'লক্ষ ৪৬ হাজার। প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নীরব ভঙ্গিতে লুকিয়ে আছেন। তারা নীরবতা ভেঙ্গে বেরিয়ে আসুন। আপনারা বৈজ্ঞানিক পরামর্শ প্রত্যাখ্যান করেছেন। অর্থ অপচয় করেছেন। জনগণের স্বার্থে হাসপাতাল তৈরি না করে নিজের অহমিকা মেটাতে প্রাসাদ নির্মাণকে প্রাধান্য দিয়েছেন। আপনি এই দ্বিতীয় ঢেউয়েও মেগা ইভেন্ট ও নির্বাচনী সমাবেশে মানুষকে যোগদানের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। অক্সিজেন সরবরাহের প্রক্রিয়া পরিচালনা করতে ব্যর্থ হয়েছেন। যথেষ্ট পরিমাণে ভ্যাকসিন না কিনে শুধুমাত্র নীতিমালা জপে গিয়েছেন। আপনি আমাদের সবাইকে এমন জায়গায় নিয়ে গিয়েছেন, যেখানে আমরা বেঁচে থাকার জন্য সংগ্রাম করছি। এর দায় আপনার। আপনি লুকিয়ে থাকতে পারেন না। আপনি নীরব থাকতে পারেন না।

ইয়েচুরির পরামর্শ, বিশ্বের সব উৎস থেকে ভ্যাকসিন কিনুন। বাধ্যতামূলক লাইসেন্সিং প্রয়োগ করুন, দেশে ভ্যাকসিন উৎপাদন বাড়ান। ভ্যাকসিনের জন্য ৩৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করুন। সেন্ট্রাল ভিস্তা বন্ধ করে ভ্যাকসিন ও অক্সিজেনের নামে সেই টাকা খরচ করুন। পিএমকেয়ার্সের টাকা অক্সিজেনের জন্য খরচ করুন। কর্মহীনদের নগদ সাড়ে ৭ হাজার টাকা করে দেওয়ার ব্যবস্থা করুন। কেন্দ্রীয় গুদামে এক টনের বেশি খাদ্যশস্য পচে যাচ্ছে। তা বিনামূল্যে বিলির ব্যবস্থা করুন। নতুন খামার আইন সংশোধন করুন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in