Congress: প্রধানমন্ত্রীর কাছে মণিপুরের কোনও গুরুত্ব নেই, তিনি 'মন কী বাত' শোনাতে ব্যস্ত - কংগ্রেস

‘ইন্ডিয়া’র ২১-সদস্যের প্রতিনিধি দল এই মুহূর্তে মণিপুর সফর করছে এবং ত্রাণ শিবিরে বেশ কয়েকটি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছে। রবিবার সকালে এই প্রতিনিধি দল রাজ্যের রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেন।
কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক জয়রাম রমেশ
কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক জয়রাম রমেশফাইল ছবি সংগৃহীত

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মাসিক ‘মন কী বাত’ প্রসঙ্গে আক্রমণের রাস্তায় হাঁটলো কংগ্রেস। প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান সম্পর্কে রবিবার কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক জয়রাম রমেশ বলেন, প্রধানমন্ত্রী কোটি কোটি ভারতীয়ের ওপর তাঁর কন্ঠস্বর চাপিয়ে দিচ্ছেন।

এক ট্যুইট বার্তায় এদিন জয়রাম রমেশ বলেন, "মণিপুরের জনগণের ক্ষোভ, উদ্বেগ, যন্ত্রণা, বেদনা এবং দুঃখের কোনও মূল্যই প্রধানমন্ত্রীর কাছে নেই। তিনি যখন নিজের কণ্ঠস্বর ‘মন কী বাত’-এর মাধ্যমে কোটি কোটি ভারতবাসীর কাছে নিজের কন্ঠস্বর চাপিয়ে দিতে ব্যস্ত, সেইসময় ‘ইন্ডিয়া’র প্রতিনিধিরা মণিপুরের ঘটনা প্রসঙ্গে রাজ্যপালের সাথে ‘মণিপুর কী বাত’ নিয়ে কথা বলছে।

নিজের ট্যুইটের সঙ্গে রমেশ মণিপুরের গভর্নর আনুসুইয়া উইকির কাছে জমা দেওয়া ‘ইন্ডিয়া’ মঞ্চের প্রতিনিধিদলের স্মারকলিপিও যুক্ত করেছেন।

‘ইন্ডিয়া’র ২১-সদস্যের প্রতিনিধি দল এই মুহূর্তে মণিপুর সফর করছে এবং ত্রাণ শিবিরে বেশ কয়েকটি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছে। রবিবার সকালে এই প্রতিনিধি দল রাজ্যের রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেন।

এর আগেই বিরোধী দলগুলি সংসদের দুই কক্ষে মণিপুর পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বিশদ বিবৃতি এবং সংসদে উত্তর-পূর্ব রাজ্যে হিংসা নিয়ে আলোচনার দাবি তুলেছে।

গত ৩ মে মণিপুরে জাতিগত সংঘর্ষ শুরু হয় এবং এরপর থেকে হিংসার ঘটনায় একশোর বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে এবং হাজার হাজার মানুষ আশ্রয় শিবিরে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছেন। এই ঘটনায় বহু মানুষ আহত হয়েছেন এবং অনেকের বাড়ি ঘর পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ Telegram-এ আমাদের ফলো করুন। YouTube -এ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in