চার কৃষক নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা, অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির দাবী ঘিরে চাঞ্চল্য সিঙ্ঘু সীমান্তে
সিঙ্ঘু সীমান্তে ধৃত সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে নিয়ে গভীর রাতে কৃষকদের সাংবাদিক সম্মেলনছবি সংগৃহীত

চার কৃষক নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা, অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির দাবী ঘিরে চাঞ্চল্য সিঙ্ঘু সীমান্তে

শুক্রবার রাতে এই ব‍্যক্তিকে হাতেনাতে ধরেছেন কৃষকরা। প্রজাতন্ত্র দিবসের আগেই চারজন কৃষক নেতাকে হত‍্যার পরিকল্পনা রয়েছে ধৃত ব‍্যক্তির, এমনটাই দাবি কৃষকদের।

অজ্ঞাতপরিচয় এক ব‍্যক্তির দাবি ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ালো সিঙ্ঘু সীমান্তে আন্দোলনরত কৃষকদের শিবিরে। শুক্রবার রাতে এই ব‍্যক্তিকে হাতেনাতে ধরেছেন কৃষকরা। প্রজাতন্ত্র দিবসের আগেই চারজন কৃষক নেতাকে হত‍্যার পরিকল্পনা রয়েছে ধৃত ব‍্যক্তির, এমনটাই দাবি কৃষকদের।

গভীর রাতেই সাংবাদিক বৈঠক ডেকে ওই ব‍্যক্তিকে প্রকাশ‍্যে আনেন কৃষকরা। তাঁর মুখ সাদা কাপড় দিয়ে ঢাকা ছিল। কৃষকরা জানান, ধৃত ব‍্যক্তি ১০ জনের একটি দলের সদস্য, প্রজাতন্ত্র দিবসের ট্রাক্টর র‍্যালিতে হামলা চালানোর জন্য যাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। একজন পুলিশ অফিসার তাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।

সাংবাদিকদের সামনে ওই ব‍্যক্তি বলেন, "২৬ জানুয়ারি আমাদের পরিকল্পনা ছিল... দিল্লি পুলিশ যখন কৃষকদের ট্রাক্টর র‍্যালি থামানোর চেষ্টা করবে, তখনই আমরা গুলি চালাব। প্রথমে গুলি চালিয়ে কৃষকদের থামানোর চেষ্টা করবো আমরা, তাতে যদি না থামে তাহলে তাঁদের দিকে গুলি চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আমাদের।"

তিনি আরো জানান, "২৪ জানুয়ারি মঞ্চের ওপরেই চার কৃষক নেতাকে গুলি করে হত‍্যার পরিকল্পনা ছিল আমাদের। গত ১৯ জানুয়ারি থেকে আমি এখানে আছি। এই সমস্ত কিছুর আমাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন প্রদীপ সিং, তিনি রাই-এর স্টেশন হাউস অফিসার। তবে আমরা কেউ ওনাকে দেখিনি। উনি যখনই আমাদের সাথে দেখা করতে আসতেন মাস্ক পরে আসতেন।"

তবে কোন কোন চারজন কৃষক নেতাকে হত‍্যার পরিকল্পনা রয়েছে এবং তাঁর দলের বাকি ন'জন এই মুহূর্তে কোথায় আছেন, তাঁদের নাম কী, এই বিষয়ে কিছুই বলেননি ধৃত ব‍্যক্তি।

গত সাত মাস ধরে রাই থানার স্টেশন হাউস অফিসার পদে রয়েছেন বিবেক মালিক। প্রদীপ সিং নামের কোনো পুলিশ অফিসার সেখানে নেই। এই বিষয়ে বিবেক মালিকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, গতরাতে কৃষকদের সাংবাদিক সম্মেলন দেখেছেন তিনি এবং সেখানে ধৃত ব‍্যক্তি যা দাবি করেছেন তাতে তিনি স্তম্ভিত।

সোনিপাত থানার পুলিশের হাতে ওই ব‍্যক্তিকে তুলে দিয়েছেন কৃষকরা।

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in