Petrol Diesel Price: কোষাগারে টান পড়বে, ভ্যাট কমাতে রাজি নয় বেশিরভাগ অ-বিজেপি রাজ্য

বিরোধীদের অভিযোগ, মোদী সরকার বছর বছর জ্বালানিতে শুল্ক আদায়ে রাজ্যের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়ার অংশ কমিয়েছে।
Petrol Diesel Price: কোষাগারে টান পড়বে, ভ্যাট কমাতে রাজি নয় বেশিরভাগ অ-বিজেপি রাজ্য
প্রতীকী ছবি

প্রতিদিনই বাড়ছে পেট্রোপণ্যের মূল্য। কোনওভাবেই তা নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে মোদি সরকার পেট্রোল-ডিজেলের শুল্ক কমানো সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেজন্য রাজ্যগুলিকে ভ্যাট কমানোর আহ্বান জানিয়েছে। কিন্তু সেই আহবানের ২৪ ঘণ্টা পর পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, মহারাষ্ট্র, কংগ্রেসশাসিত রাজস্থান, ছত্তীসগঢ়, পঞ্জাব বা বাম শাসিত কেরল - তাতে সাড়া দেয়নি।

অধিকাংশ অবিজেপি রাজ্যের যুক্তি, কেন্দ্র উৎপাদন শুল্ক কমিয়ে দিয়েছে। ফলে তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বিভিন্ন রাজ্যের ভ্যাট এমনিতেই কমে গিয়েছে। এর পরও যদি আরও বাড়তি ভ্যাট কমানো হয়, তাহলে বিভিন্ন রাজ্যের কোষাগারে টান পড়বে। তার জের পড়বে সাধারণ মানুষের উপর। তাদের যুক্তি, শুল্ক আদায় করে তার খুব সামান্য অংশই বিভিন্ন রাজ্যের পকেটে যায়। শতকরা ৯৫ ভাগই নিজের ঝোলায় পোরে কেন্দ্র । শুল্ক কমাতে হলে কেন্দ্রই কমাক।

বুধবার পেট্রলে লিটার প্রতি ৫ টাকা, ডিজ়েলে লিটারে ১০ টাকা করে শুল্ক কমানো হয়। কেরলের অর্থমন্ত্রী কে এন বালগোপাল জানিয়েছেন, উন্নয়নের খরচ কমে যাবে। তাই তাঁর সরকারের পক্ষে ভ্যাট কমানো সম্ভব নয়। তাঁর কথায় - "যা হয়েছে তা হল, কেন্দ্র এতদিন পকেট মেরেছে। পকেট মারার পর বাস ভাড়াটা ফেরত দিচ্ছে, যাতে সে বাড়িতে ফিরতে পারে এবং কেন্দ্র এটিই করেছে। কেরালা কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এবং তাই আমরা কমাতে পারছি না।"

রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌতের দাবি, কেন্দ্র ৫ ও ১০ টাকা করে শুল্ক কমানোয় এমনিতেই রাজ্যের ভ্যাট কমছে। পেট্রল-ডিজেলের মূল দামের সঙ্গে পরিবহণ খরচ, কেন্দ্রের উৎপাদন শুল্ক যোগ করে মোট মূল্যের উপরে শতকরা হারে রাজ্য ভ্যাট আদায় করে।

গহলৌতের এই যুক্তি যে ঠিক, তা কেন্দ্রের অর্থ মন্ত্রকের আধিকারিকরাও মানছেন। তাঁদের যুক্তি, উৎপাদন শুল্ক কমলে এমনিতেই রাজ্যের ভ্যাট কমে। গহলৌতের যুক্তি, ভ্যাট আদায় কমার ফলে ইতিমধ্যে রাজস্থান সরকারের বছরে প্রায় ১৮০০ কোটি টাকা লোকসান হবে।

বিরোধীদের অভিযোগ, মোদী সরকার বছর বছর জ্বালানিতে শুল্ক আদায়ে রাজ্যের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়ার অংশ কমিয়েছে। কংগ্রেসের প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরার দাবি, মন থেকে নয়, ভয় থেকে কেন্দ্র এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তোলাবাজ সরকার যেভাবে লুট করছে, তার জবাব আগামী দিনে মানুষ নির্বাচনেই দেবে। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের বক্তব্য, ‘চড়া শুল্কের জন্যই যে তেলের দাম বেশি, আমাদের সেই অভিযোগ প্রমাণিত হল।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in