Parliament Session: বিরোধীদের বিক্ষোভ, লাগাতার মুলতুবির মাঝেই এই সপ্তাহে রাজ্যসভায় ৮ বিল পাশ
সংসদ ভবনফাইল ছবি সংগৃহীত

Parliament Session: বিরোধীদের বিক্ষোভ, লাগাতার মুলতুবির মাঝেই এই সপ্তাহে রাজ্যসভায় ৮ বিল পাশ

একদিকে বিরোধীরা যখন বারবার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সংসদকে অবমাননা করার অভিযোগ তুলছে সেই সময়েই সরকার সংসদে ছটি বিল দ্রুততার সঙ্গে পেশ করেছে।

বিরোধীদের বিক্ষোভ অব্যাহত থাকলেও সংসদের উচ্চকক্ষে অচলাবস্থার মধ্যেই সরকার এই সপ্তাহে একাধিক বিল পেশ ও পাশ করেছে।

একদিকে বিরোধীরা যখন বারবার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সংসদকে অবমাননা করার অভিযোগ তুলছে সেই সময়েই সরকার সংসদে ছটি বিল দ্রুততার সঙ্গে পেশ করেছে।

সংক্ষিপ্ত স্থগিতাদেশের মধ্যেই বৃহস্পতিবার সরকার তিনটি বিল পাশ করিয়ে নিয়েছে। যার মধ্যে আছে – দ্য কন্সটিটিউশন (শিডিউলড ট্রাইব) অর্ডার (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল, দ্য কমিশন ফর এয়ার কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট ইন ন্যাশনাল ক্যাপিটাল রিজিওন অ্যান্ড অ্যাডজয়েনিং এরিয়াস বিল এবং দ্য এসেন্সিয়াল ডিফেন্স সার্ভিস বিল ২০২১।

বুধবারও বিরোধী দলের বিক্ষোভের মধ্যে সরকার তিনটি বিল পাশ করেছে। বিলগুলি সংসদের কার্যক্রমে প্রায় ৪৫ মিনিটের মধ্যে পাশ করা হয়।

দ্য লিমিটেড লায়বেলিটি পার্টনারশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট ২০২১ রাজ্যসভায় ২৪ মিনিটে পাশ হয়। এরপরেই ডিপোজিট ইন্স্যুরেন্স অ্যান্ড ক্রেডিট গ্যারান্টি অ্যামেন্ডমেন্ট ২০২১ পাশ হয় ১৬ মিনিটে। এছাড়াও দ্রুত পাশ করানো হয় এয়ারপোর্ট ইকনমিক রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া বিল।

মঙ্গলবার রাজ্যসভা সারাদিনের জন্য মুলতুবি হয়ে গেলেও অল্প সময়ের মধ্যে পাশ হয় ইনসলভেন্সি অ্যান্ড ব্যাঙ্করাপ্সি কোড (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল ২০২১। সোমবার পাশ করিয়ে নেওয়া হয় দ্য ইনল্যান্ড ভেসেলস বিল ২০২১।

গত বৃহস্পতিবার সংসদে অচলাবস্থা জন্য সরকার বিরোধীদের দায়ী করে এবং বলে বিরোধীরা সমস্যার সমাধান চাইছে না।

অন্যদিকে রাজ্যসভায় বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে কেন্দ্রকে অচলাবস্থার জন্য দায়ী করে বলেন, বিরোধী দল পেগাসাস স্নুপিং ইস্যুতে আলোচনার জন্য প্রস্তুত। খাড়গে জানিয়েছিলেন যে সমস্যার সমাধানের জন্য প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং তাঁকে ফোন করেছিলেন। কিন্তু বিরোধী দলের কোনও সদস্য এখন পর্যন্ত কোনও বৈঠকের জন্য কোনও সরকারী আমন্ত্রণ পাননি। খাড়গের অভিযোগের জবাবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন যে, তিনি কোনও আশ্বাস দেননি এবং কেবল বলেছিলেন যে সংসদে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে এবং এই অচলাবস্থা বন্ধ হওয়া উচিৎ।

এছাড়াও, ৬ টিএমসি সাংসদকে চেয়ারম্যান একদিনের জন্য সাসপেন্ড করেছিলেন। অভিযোগ করা হয়েছিল যে এক টিএমসি সাংসদকে প্রবেশে বাধা দিলে তিনি একটি দরজার কাঁচ ভেঙে দিয়েছিলেন।

বিরোধীদের দাবি ২৬৭ ধারার অধীনে স্নুপিং কাণ্ড, কৃষি আইন এবং জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে আলোচনার অনুমতি দিক সরকার। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে কৃষি আইন সম্পর্কে মন্ত্রীর বক্তব্যের পরেই কেবল ব্যাখ্যা চাওয়া যেতে পারে। সংসদে স্বল্প সময়ের আলোচনার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পেগাসাস ইস্যু নিয়ে আলোচনার আগে বিরোধীরা এটি নিয়ে আলোচনা করতে প্রস্তুত নয়।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in