দিল্লিতে অক্সিজেন সংকট চরমে: গঙ্গারাম হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় মৃত ২৫ কোভিড রোগী

শুক্রবার সকালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে বিবৃতি জারি করে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে জানানো হয়, মাত্র দুই ঘণ্টার অক্সিজেন পড়ে রয়েছে, এদিকে ৬০ জনেরও বেশি রোগীর অক্সিজেনের দরকার।
দিল্লিতে অক্সিজেন সংকট চরমে: গঙ্গারাম হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় মৃত ২৫ কোভিড রোগী
দিল্লির গঙ্গারাম হাসপাতালফাইল ছবি সংগৃহীত

চারিদিকে কেবল অক্সিজেনের হাহাকার। গত ২৪ ঘণ্টাতেই দিল্লির গঙ্গারাম হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে ২৫ জন করোনা রোগীর। শুক্রবার সকালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে বিবৃতি জারি করে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে জানানো হয়, মাত্র দুই ঘণ্টার অক্সিজেন পড়ে রয়েছে, এদিকে ৬০ জনেরও বেশি রোগীর অক্সিজেনের দরকার। দ্রুত অক্সিজেন না পৌঁছলে তাঁদের প্রাণসঙ্কট দেখা দেবে।

এ দিন, সকাল আটটা নাগাদ কেন্দ্রের কাছে অক্সিজেন চেয়ে একটি জরুরি বিবৃতি প্রকাশ করে হাসপাতাল। তাতে বলা হয়,'গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। আর মাত্র দুই ঘণ্টার অক্সিজেন রয়েছে। ভেন্টিলেটর ও বাইপ্যাপও সঠিকভাবে কাজ করছে না। আইসিইউ ও এমার্জেন্সি বিভাগে ম্যানুয়াল ভেন্টিলেশন চালানো হচ্ছে। যেকোনও সময়ে বড় বিপদ ঘটতে পারে। ৬০ জনেরও বেশি রোগীর প্রাণ সঙ্কটে রয়েছে। দ্রুত হস্তক্ষেপের প্রয়োজন।' হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে, অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে দ্রুত আকাশপথে অক্সিজেন সরবরাহ করা হোক।

সূত্র অনুযায়ী, বর্তমানে গঙ্গারাম হাসপাতালে ৫০০-রও বেশি করোনা রোগীর চিকিৎসা চলছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যে ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাঁরা অক্সিজেনের অভাবেও মারা যেতে পারেন বলে সন্দেহ। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, ১৪২ জন কোভিড রোগীরই আপৎকালীন অক্সিজেন দরকার। তবে একা গঙ্গারাম হাসপাতাল নয়। দিল্লির একাধিক হাসপাতালেই চিত্রটা একই। গতকালই একটি বেসরকারি হাসপাতাল দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় অক্সিজেন ঘাটতি নিয়ে হস্তক্ষেপের দাবিতে।

সূত্র অনুসারে, সকালের এই ঘটনার পরেই দিল্লির গঙ্গারাম হাসপাতালে জরুরি ভিত্তিতে অক্সিজেন ট্যাঙ্কার পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য, এদিন দিল্লির হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ নিয়ে রাজনৈতিক টানাপোড়েন শুরু হয় মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়ালের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের। একসময় অরবিন্দ কেজরীওয়াল জানান, দিল্লিতে অক্সিজেন ট্যাঙ্কার ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। তিনি আরও বলেন – অক্সিজেনের অভাবে বড় কোনো ট্র্যাজেডি ঘটে যেতে পারে। এরপর আমরা আর কোনোভাবেই নিজেদের ক্ষমা করতে পারবো না। আমি সকলের কাছে হাতজোড় করে অনুরোধ করছি দিল্লি অভিমুখী অক্সিজেন ট্যাঙ্কারকে বিনা বাধায় আসতে দেওয়া হোক। দিল্লিতে কোনো অক্সিজেন প্ল্যান্ট নেই বলে কি দিল্লির মানুষ অক্সিজেন পাবেন না? দয়া করে কেন্দ্রীয় সরকারের কেউ আমাকে বলুন আমি এই বিষয়ে কার সাথে কথা বলবো। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তিনি অনুরোধ করেন প্রয়োজনে পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশা থেকে আকাশপথে দিল্লিতে অক্সিজেন আনা হোক।

যদিও সূত্র অনুসারে অরবিন্দ কেজরীওয়াল আকাশপথে অক্সিজেন আনার প্রস্তাব দেওয়ার আগেই ওড়িশা থেকে আকাশপথে দিল্লির জন্য অক্সিজেন পাঠানো হয়েছে। অন্য একটি মহল থেকে বলা হয়েছে অরবিন্দ কেজরীওয়াল সঠিক কথা বলছেন না।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in