'মন্দিরে হিন্দু ছাড়া প্রবেশ নিষেধ' পোস্টার, অভিযুক্ত হিন্দু যুব বাহিনী

উত্তরাখণ্ডে ঘণ্টাঘর এলাকার ওই মন্দিরের সামনে ব্যানার দেখে অনেকেই অবাক হয়ে যান। ওই ব্যানারে লেখা ছিল, 'এটি হিন্দুদের জন্য পবিত্র স্থান। এখানে অ-হিন্দুদের প্রবেশ নিষেধ।' নিচে নাম ছিল হিন্দু যুব বাহিনীর
'মন্দিরে হিন্দু ছাড়া প্রবেশ নিষেধ' পোস্টার, অভিযুক্ত হিন্দু যুব বাহিনী
উত্তরাখন্ডে এক মন্দিরের সামনে ব্যানারছবি গোবিন্দ হিন্দুস্থানীর ফেসবুক পেজ থেকে সংগৃহীত

ফের বিতর্কে হিন্দু যুব বাহিনী। হিন্দু না হলে প্রবেশ করা যাবে না মন্দিরে। উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনের ঘণ্টা ঘরের একটি মন্দিরের সামনে এমনই এক ব্যানার ঘিরে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। অবশ্য বিতর্কের মুখে পড়ে সেটি সরানো হয়েছে। এমনকী এই ঘটনায় একটি মামলাও দায়ের হয়েছে।

এর আগে সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশে মন্দিরে ঢুকে জল পান করায় মারধোর করা হয় এক মুসলিম কিশোরকে। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদের। পুলিশ সূত্রে খবর, এক মুসলিম কিশোর গাজিয়াবাদের মন্দিরে ঢুকে জলপান করে। সে ঘটনা দেখতে পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তার নাম-পরিচয় জানতে চায় এক ব্যক্তি। এর পরই ওই কিশোরকে বেধড়ক মারধোর শুরু করে সে। গোটা ঘটনার ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। নিন্দার ঝড়ে চাপে পড়ে যায় উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। তড়িঘড়ি অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে তারা।

জানা গিয়েছে, উত্তরাখণ্ডে ঘণ্টা ঘর এলাকার ওই মন্দিরের সামনে ব্যানারটি দেখে অনেকেই অবাক হয়ে যান। ওই ব্যানারে লেখা ছিল, 'এটি হিন্দুদের জন্য পবিত্র স্থান। এখানে অ-হিন্দুদের প্রবেশ নিষেধ।' নিচে আবার নাম লেখা ছিল হিন্দু যুব বাহিনীর। শুধু ওই মন্দিরে নয়, জানা গিয়েছে, উত্তরাখণ্ডে একাধিক হিন্দু মন্দিরের সামনে এই ধরনের ব্যানার টানানো হয়। আর এটি সামনে আসতেই রীতিমতো বিতর্ক দেখা দেয়। অনেকেই এই কাজের সমালোচনা করেন।

বিতর্কের মুখে পড়ে অবশ্য মন্দির কর্তৃপক্ষ অবশ্য জানিয়েছে, এই ধরনের কোনও ব্যানারের ব্যাপারে তাঁরা কিছু জানেন না। ইতিমধ্যে সেটি সরানো হয়েছে বলেও খবর। শুধু তাই নয়, যে ব্যক্তির ফোন নম্বর ওই ব্যানারটিতে ছিল, তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি ১৫৩এ ধারায় মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in