মুজফ্ফরনগর: আন্দোলনরত কৃষকদের 'মহাপঞ্চায়েত'-এ জনস্রোত

মুজফ্ফরনগর: আন্দোলনরত কৃষকদের 'মহাপঞ্চায়েত'-এ জনস্রোত
মুজফফরনগরে মহাপঞ্চায়েতে গণ জমায়েতছবি ট্যুইটার ভিডিও থেকে স্ক্রিনশট

মুজাফফরনগরে মহাপঞ্চায়েতের ডাক দিয়েছে ভারতীয় কিষান ইউনিয়ন। উত্তরপ্রদেশের গাজীপুর সীমান্ত থেকে ১৫০ কিমি দূরে এই মহাপঞ্চায়েতের নেতৃত্ব দিচ্ছেন নরেশ টিকায়েত। তিনি ভারতীয় কিষান ইউনিয়ন এর নেতা রাকেশ টিকায়েতের ভাই।

ড্রোন ক্যামেরায় পার্শ্ববর্তী এক কলেজ মাঠে এই মহাপঞ্চায়েতের ছবি ধরা পড়েছে। যেখানে অসংখ্য গ্রামবাসীর সমাগম হয়েছে দেখা যাচ্ছে।

এই মহাপঞ্চায়েত থেকেই সিদ্ধান্ত হয়েছে- তাঁরা গাজীপুরে আসবেন, যেখানে কৃষকরা অবস্থান করছেন। ইতিমধ্যেই একটা বড় অংশের কৃষক আবার গাজীপুরে উপস্থিত হয়েছেন।

ঘটনার সূত্রপাত গতকাল। যখন উত্তরপ্রদেশ পুলিশ আন্দোলনকারীদের সরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। জল ও বিদ্যুত সংযোগ কেটে দিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সংখ্যা ক্রমেই বাড়াতে থাকে। গোটা এলাকা সিল করে ১৪৪ ধারাও জারি করে। কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত সাংবাদিক সম্মেলন করে এক আবেগঘন আবেদন রাখেন। তাতেই গোটা পরিস্থিতি অন্যদিকে মোড় নেয়। সেই ভিডিও মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

“প্রয়োজনে গুলি খাব কিন্তু আন্দোলন বন্ধ করব না” বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন টিকায়েত। এরপরেই গোটা পশ্চিম উত্তরপ্রদেশ থেকে কৃষকরা গাজীপুরে আসতে থাকে। কৃষকদের সমর্থনে মুজাফফরনগরে মহাপঞ্চায়েতেরও ডাক দেওয়া হয়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে কৃষকদের জল ও বিদ্যুৎ সংযোগ পুনরায় চালু করে প্রশাসন। বাড়তি নিরাপত্তা বাহিনীও সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের অধিকর্তা প্রশান্ত কুমার বলেন- “কৃষকদের জোর করে সরিয়ে দেবার কোনো পরিকল্পনা আমাদের নেই। শুধুমাত্র কৃষকদের নিরাপত্তার কারণে বাড়তি বাহিনীর আনা হয়েছিল - যাতে দুষ্কৃতীরা আন্দোলনে ঢুকতে না পারে।”

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in