কৃষকদের ট্র্যাক্টর মিছিল ঘিরে সংঘর্ষে জখম ৩০০-র বেশি পুলিশ, দায়ের ২২টি FIR

সংযুক্ত কৃষক মোর্চা দিল্লি পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনা চালিয়েছিল এই প্যারেডকে শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য। কিন্তু সকাল ৮ নাগাদ প্রথম ঝামেলা শুরু হয়, যা প্যারেডের নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই।
কৃষকদের ট্র্যাক্টর মিছিল ঘিরে সংঘর্ষে জখম ৩০০-র বেশি পুলিশ, দায়ের ২২টি FIR
কৃষকদের ট্র্যাক্টর মিছিল ঘিরে ধুন্ধুমার পরিস্থিতিছবি সংগৃহীত

সাধারণতন্ত্র দিবসে ট্র্যাক্টর প্যারেডে ছড়িয়ে পড়া হিংসার কারণে দিল্লি পুলিশ এখনও পর্যন্ত ২২ টি এফআইআর দায়ের করেছে। দু'পক্ষের সংঘর্ষে জখম হয়েছেন প্রায় ৩০০-র বেশি পুলিশকর্মী। মুকারবা চক, গাজিপুর, আইটিও, সীমাপুর, নাংলোই টি-পয়েন্ট, টিকরি সীমান্ত ও লালকেল্লায় মূলত এই সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়েছিল। গাজিপুর, টিকরি ও সিঙ্ঘু সীমান্তে পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে দেয় আন্দোলনরত কৃষকরা।

বহু কৃষক নেতার নাম এফআইআরে দায়ের করা হয়েছে। অপরাধ দমন শাখা ও স্পেশ্যাল সেল এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। মোট ৮টি বাস এবং ১৭ টি বেসরকারি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে বলে পুলিশ রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। সংযুক্ত কৃষক মোর্চা দিল্লি পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনা চালিয়েছিল এই প্যারেডকে শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য। কিন্তু তা সত্ত্বেও সকাল ৮ নাগাদ প্রথম ঝামেলা শুরু হয়, যা প্যারেডের নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই ছিল। এই সময় ৬ থেকে ৭ হাজার ট্র্যাক্টর সিঙ্ঘু সীমান্তে জড়ো হতে থাকে। তারা সেন্ট্রাল দিল্লির দিকে এগোতে থাকে। পুলিশের তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়, 'নিহাংসের নেতৃত্বে ঘোড়ায় চড়ে হাতে তলোয়ার, কৃপাণ নিয়ে কৃষকরা এগোতে থাকে। মুকারবা চক ও ট্রান্সপোর্ট নগরের বহু ব্যারিকেডও ভেঙে ফেলা হয়'।

বিবৃতিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, গাজিপুর ও সিঙ্ঘু সীমান্ত দিয়ে দিল্লির দিকে প্রবেশ করতে থাকেন কৃষকরা। সেই সময় পুলিশ বাধা দিলেই সংঘর্ষ বেধে যায়।

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in