'প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি মোদী সরকার' - দেশজুড়ে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক সংযুক্ত কিষান মোর্চার

সারা ভারত কৃষকসভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা বলেন, মোদী সরকার যেভাবে দেশের কৃষকদের সঙ্গে প্রতারণা করলো, তাতে নতুন করে আন্দোলন তীব্রতর করা ছাড়া পথ নেই।
লখনৌ মহাপঞ্চায়েত
লখনৌ মহাপঞ্চায়েতফাইল চিত্র

প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি মোদী সরকার (Modi Govt.)। দেশের কৃষকদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে। এই অভিযোগে আবার দেশজুড়ে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দিয়েছে সংযুক্ত কিষান মোর্চা (Samyukta Kisan Morcha (SKM))।

বৃহস্পতিবার, দিল্লিতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে মোর্চা নেতারা জানান, আগামী ২৬ নভেম্বর দেশের প্রতিটি রাজভবনে কৃষক অভিযান (March to Raj Bhawans) হবে। এদিন দেশের রাষ্ট্রপতির (President) উদ্দেশ্যে লেখা কৃষকসমাজের দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি (memorandum) সংশ্লিষ্ট রাজ্যপালদের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

কৃষক নেতারা বলেন, ফসলের ন্যুনতম সহায়ক মূল্য (MSP)'র আইনী স্বীকৃতি, বিদ্যুৎ বিল প্রত্যাহারের মতো দাবিগুলি মেনে নেওয়া হবে বলে গত ৯ ডিসেম্বর মোদী সরকার লিখিতভাবে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। তার ভিত্তিতে কৃষকরা আন্দোলন স্থগিত রেখেছিলেন। কিন্তু এক বছর পেরিয়ে গেলেও প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কেন্দ্র কিছুই করেনি। ফলে ন্যায্য দাবি আদায়ে ফের জোরদার আন্দোলনের পথে যেতে বাধ্য হচ্ছে কৃষকসমাজ।

এর আগে, ১৪ গুরুদুয়ারা রাকাবগঞ্জে বৈঠকে বসেছিলেন সংযুক্ত কিষান মোর্চা (SKM)-র জাতীয় কাউন্সিল। সেই প্রসঙ্গ টেনে- এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে দর্শন পাল, হান্নান মোল্লা প্রমুখ কৃষকনেতারা জানান, গত ১৪ বৈঠকে আন্দোলনের এই কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে।

এছাড়া, ১ থেকে ১১ ডিসেম্বর, দেশের সমস্ত রাজনৈতিক দলের সাংসদদের অফিসে মিছিল করে যাবেন কৃষকরা। কৃষকের দাবিসনদ নিয়ে সংসদের ভেতরে সোচ্চার হওয়ার আবেদন জানানো হবে তাঁদের কাছে। এর মধ্যে, ৮ ডিসেম্বর, সংযুক্ত কিষান মোর্চার বৈঠকে আন্দোলনের পরবর্তী কর্মসূচী বিস্তারিতভাবে ঠিক করা হবে।

সারা ভারত কৃষকসভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা বলেন, মোদী সরকার যেভাবে দেশের কৃষকদের সঙ্গে প্রতারণা করলো, তাতে নতুন করে আন্দোলন তীব্রতর করা ছাড়া পথ নেই। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে যথাযোগ্য শক্তি নিয়ে সারা দেশেই এই আন্দোলন চলবে।

তিনি বলেন, “কর্জ মুক্তি, পুরা দাম” (Karz Mukti - Poora Daam) অর্থাৎ ঋণের জাল থেকে কৃষকের পূর্ণ মুক্তি এবং ফসলের সম্পূর্ণ লাভজনক দাম নিশ্চিত করতে হবে সরকারকে। এই দাবি পূরণ না হওয়া পর্যস্ত কৃষকদের লড়াই চলবে।

সাংবাদিক সম্মেলনে সংযুক্ত কিষান মোর্চার নেতারা বলেন, সরকারের নয়া উদার নীতির কারণেই দেশজুড়ে এবং কৃষকের আত্মহত্যা বেড়ে গিয়েছে। ১৯৯৫ সাল থেকে ভারতে 8 লক্ষেরও বেশি কৃষক আত্মঘাতী হয়েছেন। দেশের কৃষক পরিবারগুলির প্রায় ৬৮ শতাংশই ঋণের জালে জড়িয়ে পড়েছে। অসহনীয় দুর্দশার মধ্যে তাঁদের জীবনযাপন করতে হচ্ছে। এই অবস্থায় কেন্দ্রের মোদী সরকারকে তাঁদের দাবি মানতেই হবে।

লখনৌ মহাপঞ্চায়েত
WB: এক বছরে ১২২ কৃষক আত্মঘাতী কেবলমাত্র একটি জেলাতেই: RTI Report, NCRB-তে এরকম তথ্যই নেই

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in