MANF: 'মৌলানা আজাদ ন্যাশনাল ফেলোশিপ' বন্ধ করছে কেন্দ্র: সংসদে স্মৃতি ইরানি

'মৌলানা আজাদ ন্যাশনাল ফেলোশিপ' (MANF) ৬টি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ভুক্ত (বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, জৈন, মুসলিম, পার্সি ও শিখ) শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তায় ৫ বছরের জন্য বরাদ্দ করা হয়।
কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানী
কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানীফাইল ছবি সংগৃহীত

সাচার কমিটির সুপারিশ মেনে, ২০০৯ সালে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ছাত্রদের জন্য মৌলানা আজাদ ন্যাশনাল ফেলোশিপ (MANF) চালু করেছিল কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন UPA সরকার। কিন্তু, চলতি শিক্ষাবর্ষে তা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন NDA সরকার।

বৃহস্পতিবার, সংসদে কংগ্রেস সাংসদ টি. এন. প্রথাপনের এক প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বলেন, ‘সরকারের অন্যান্য প্রকল্পের সাথে MANF-র ওভারল্যাপস (Overlaps)-র কারণে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে এটি বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।’

এদিন স্মৃতি ইরানি জানান, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (UGC)-র তথ্য অনুসারে, ২০১৪-১৫ আর্থিক বছর থেকে ২০২১-২২ আর্থিক বছরের মধ্যে কমপক্ষে ৬,৭২২ জন প্রার্থী মৌলানা আজাদ ন্যাশনাল ফেলোশিপ পেয়েছেন। এই সময়কালে সরকারের খরচ হয়েছে ৭৩৮ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা।’

এর আগে, জাতীয় সংবাদ মাধ্যম ‘দ্য হিন্দু’ জানিয়েছিল, MANF পেতে সমস্যায় পড়ছেন গবেষকরা। মাসের পর মাস তাঁরা এই ফেলোশিপ পাচ্ছেন না। যার জেরে ছাত্রছাত্রীদের মাধ্যে প্রকল্পের ধারাবাহিকতা নিয়ে সন্দেহ জাগে।

এদিন সাংসদ প্রথাপন বলেন, ‘এটা অন্যায়। অনেক গবেষক এই পদক্ষেপের মাধ্যমে আরও অধ্যয়নের সুযোগ হারাবেন। সংসদে আমি MANF বন্ধের বিষয়টি উত্থাপন করবো।’

কেন্দ্রের MANF বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার জাতীয় ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এন.এস. আব্দুল হামিদ। তিনি বলেন, ‘যারা OBC সম্প্রদায়ভুক্ত নয়, এমন সকল সংখ্যালঘু ছাত্রদের উপর এটি প্রভাব ফেলবে।’

হামিদ বলেন, ‘সংখ্যালঘু, ওবিসি, দলিত এবং আদিবাসীদের জন্য বৃত্তিগুলি (Scholarship) ওভারল্যাপ করা হত, কারণ আবেদনকারীরা একই সামাজিক বা ধর্মীয় পটভূমি থেকে আসছে। আমরা কেন্দ্রের কাছে এই অসঙ্গতির সংশোধনের দাবি জানিয়ে ছিলাম। কিন্তু, সরকার অসঙ্গতিগুলি সংশোধন করার পরিবর্তে, পুরো ব্যবস্থাপনাকেই বন্ধ করে দিয়েছে। এটি মুসলিম, শিখ এবং খ্রিস্টান ছাত্রছাত্রীদের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে, যারা বিভিন্ন রাজ্যে ওবিসি হিসাবে বিবেচিত হন না।’

প্রসঙ্গত, গত ৩০ সেপ্টেম্বর, তিনটি ফেলোশিপ কেন্দ্রের কাছে হস্তান্তর করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (UGC)। এর মধ্যে একটি হল - 'ন্যাশনাল ফেলোশিপ ফর এসসি' (NFSC) ফেলোশিপ। যেটি তফসিলি জাতিভুক্ত শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান, কলা, সমাজবিজ্ঞান এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ও প্রযুক্তিবিদ্যা পড়ছেন, তাঁদের জন্য বরাদ্দ করা হয়। এই প্রকল্পে সমস্ত বিষয়ে ২০০০টি স্কলারশিপ দেওয়া হয়।

দ্বিতীয়টি হল, 'ন্যাশনাল ফেলোশিপ ফর ওবিসি'। উচ্চশিক্ষায় পাঠরত ‘অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণিভুক্ত’ (OBC) শিক্ষার্থীদের জন্য এই ফেলোশিপ বরাদ্দ করা হয়। প্রতি বছর এই প্রকল্পে সমস্ত বিষয়ে ৩০০ টি স্কলারশিপ দেওয়া হয়।

আর, তৃতীয় ফেলোশিপটি হল 'মৌলানা আজাদ ন্যাশনাল ফেলোশিপ' (MANF)। এটি ৬টি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ভুক্ত (বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, জৈন, মুসলিম, পার্সি ও শিখ) শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তায় ৫ বছরের জন্য বরাদ্দ করা হয়।

কিন্তু, তৃতীয় এই MANF প্রকল্পটি বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার। যেখানে এই প্রকল্পটি সাচার কমিটির সুপারিশ মেনে চালু করা হয়েছিল।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানী
তৃণমূলের দলীয় মঞ্চে সংবর্ধনা নিতে কর্তব্যরত পুলিশ! ভাইরাল ভিডিও, তীব্র কটাক্ষ বিরোধীদের
কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানী
HP Polls 22: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরের হামিরপুর কেন্দ্রে ৫ আসনেই হার BJP-র

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in