মহারাষ্ট্রে রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের ইঙ্গিত!
মহারাষ্ট্রে রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের ইঙ্গিত!ছবি - সংগৃহীত

Maharashtra: মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচনের আগে শাসক জোটে ফাটল! একা লড়ার বার্তা অজিত গোষ্ঠীর নেতার

People's Reporter: বর্তমানে মহারাষ্ট্রে ক্ষমতাসীন মহায়ুতি জোটে আছে মুখ্যমন্ত্রী একনাথ সিন্ধের নেতৃত্বাধীন শিবসেনা গোষ্ঠী, বিজেপি এবং অজিত পাওয়ারের নেতৃত্বাধীন এনসিপি গোষ্ঠী।

কয়েক মাস পরই মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে সংকটের মুখে মহারাষ্ট্রের বিজেপি নেতৃত্বাধীন মহায়ুতি জোট। যে জোটে রয়েছে একনাথ সিন্ধে গোষ্ঠীর শিবসেনা এবং অজিত পাওয়ারের এনসিপি। আসন বন্টন নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন এনসিপি নেতা (অজিত গোষ্ঠী) অমল মিতকারি।

বর্তমানে মহারাষ্ট্রে ক্ষমতাসীন মহায়ুতি জোটে আছে মুখ্যমন্ত্রী একনাথ সিন্ধের নেতৃত্বাধীন শিবসেনা গোষ্ঠী, বিজেপি এবং অজিত পাওয়ারের নেতৃত্বাধীন এনসিপি গোষ্ঠী। লোকসভা নির্বাচনে মহারাষ্ট্রে ইন্ডিয়া জোটকে আটকাতে পারেনি এই মহায়ুতি জোট। লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই এক অন্যকে প্রকাশ্যেই দোষারোপ করতে শুরু করে। সেই আগুনে ঘি ঢাললেন এনসিপি বিধান পারিষদ অমল মিতকারি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এনসিপি নেতা বলেন, "আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে মহারাষ্ট্রের মহায়ুতি জোটের সদস্যদের পৃথকভাবে লড়াই করতে হবে। কারণ ২৮৮ আসনের মধ্যে সকল সদস্যই যদি ১০০ আসনে লড়তে চায় তাহলে কীভাবে সমীকরণ মিলবে? আবার কেউ যদি আমাদের মাত্র ৫৫টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য প্রস্তাব দেয় তাহলে সেটাও মেনে নেওয়া যায় না"।

অমল মিতকারি যে বিজেপিকে উদ্দেশ্য করেই যে এই মন্তব্য করেছেন তা সকলেই বুঝতে পেরেছেন। এনসিপি নেতাকে পাল্টা কটাক্ষ করেছেন বিজেপি বিধান পারিষদ প্রবীন দারেকার। তিনি বলেন, এনসিপির শীর্ষ নেতৃত্বের উচিত মিতকারিকে সতর্ক করা। দলের প্রধান বা রাজ্য সভাপতিকে এটা স্পষ্ট করা উচিত যে মিতকারি দলের অনুমতি নিয়েই এই ধরণের মন্তব্য করছেন কিনা। আসন বন্টন নিয়ে আলোচনা হবে সমস্ত দলের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে।

২০১৯ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি এবং অবিভক্ত শিবসেনা জোট (এনডিএ) করে লড়াই করেছিল। বিপক্ষে ছিল কংগ্রেস এবং এনসিপির ইউপিএ জোট। ২৮৮ আসনের মধ্যে ১০৫টি আসন জেতে বিজেপি। ৫৬টি আসন জেতে শিবসেনা। এনসিপি জেতে ৫৪টি আসনে, কংগ্রেস জেতে ৪৪টি আসন এবং অন্যান্যরা জেতে ২৯টি আসনে। কিন্তু তারপর মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক সমীকরণ বদলে যায়।

মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে বিতর্কের জেরে উদ্ধব ঠাকরে এনডিএ ত্যাগ করেন এবং কংগ্রেস ও এনসিপি-র সমর্থনে সরকার গঠন করেন। যদিও ২০২২ সালে শিবসেনা ভেঙে যায় এবং একনাথ সিন্ধের নেতৃত্বে শিবসেনার দুই তৃতীয়াংশ বিধায়ক এনডিএ শিবিরে যোগ দেয়। এরপরেই মহারাষ্ট্রের মহাবিকাশ আঘাদি সরকারের পতন ঘটে। পরবর্তী সময়ে এনসিপি-র বেশ কিছু বিধায়ককে সঙ্গে দিয়ে দল ভাঙেন অজিত পাওয়ার এবং এনডিএ শিবিরে যোগ দেন তিনি।

মহারাষ্ট্রে রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের ইঙ্গিত!
Amartya Sen: ভারত ধর্মনিরপেক্ষ দেশ, এই ভোটে ভোটারদের সেই মতের প্রতিফলন ঘটেছে: অমর্ত্য সেন
মহারাষ্ট্রে রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের ইঙ্গিত!
আশা করি গতবারের মতো বিরোধী সাংসদদের বহিষ্কার করা হবে না - স্পিকারকে বার্তা অখিলেশ যাদবের

GOOGLE NEWS-এ Telegram-এ আমাদের ফলো করুন। YouTube -এ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in