Magsaysay Award: দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে ম্যাগসেসে পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করলেন কে কে শৈলজা

কোভিড-১৯ এবং নিপা ভাইরাসের প্রতিরোধে কে কে শৈলজার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার কারণে র‍্যামন ম্যাগসেসে অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন দ্বারা ৬৪ তম ম্যাগসেসে পুরস্কারের জন্য তাঁর নাম বিবেচনা করা হয়।
কে কে শৈলজা
কে কে শৈলজা ছবি সংগৃহীত

“ফিলিপাইনের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ম্যাগসেসে একজন কমিউনিস্ট বিরোধী ছিলেন। একজন ব্যক্তি হিসেবে আমাকে ম্যাগসেসে পুরস্কারের জন্য বিবেচনা করা হয়েছিল। রাজনৈতিক নেতা হওয়ার কারণে পুরস্কার গ্রহণের বিষয়ে দলের সঙ্গে পরামর্শ করেছিলাম। আমি আমার নাম বিবেচনা করার জন্য ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানিয়েছি এবং এরপর তাদের কাছে আমার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছি।'' ম্যাগসেসে পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করার পর রবিবার সিপিআইএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং কেরালার প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা সংবাদমাধ্যমে একথা জানিয়েছেন।

সম্প্রতি কেরালার প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং বিশিষ্ট সিপিআইএম নেতা কে কে শৈলজাকে এশিয়ার নোবেল পুরস্কার হিসেবে পরিচিত ম্যাগসেসে পুরস্কার দেবার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। কোভিড-১৯ এবং নিপা ভাইরাসের প্রতিরোধে কে কে শৈলজার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার কারণে র‍্যামন ম্যাগসেসে অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন দ্বারা ৬৪ তম ম্যাগসেসে পুরস্কারের জন্য তাঁর নাম বিবেচনা করা হয়।

কে কে শৈলজা এই পুরস্কার গ্রহণ করলে তিনিই প্রথম কোনো রাজনীতিবিদ হিসেবে এই সম্মান পেতেন। এই প্রসঙ্গে কে কে শৈলজা জানিয়েছেন, আমি এর আগে কোনো রাজনীতিবিদকে এই সম্মান দেওয়া হচ্ছে বলে শুনিনি।

প্রসঙ্গত, র‍্যামন ম্যাগসেসে পুরস্কার, যা ফিলিপাইনের প্রয়াত রাষ্ট্রপতির স্মৃতিকে সম্মান করে দেওয়া হয়। এই পুরস্কারকে এশিয়ার নোবেল পুরস্কার হিসাবেও বিবেচনা করা হয়। সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে নিঃস্বার্থ অবদানের জন্য ব্যক্তি ও সংস্থাকে এই সম্মান দেওয়া হয়।

সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি দিল্লিতে এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, শৈলজা দলীয় সিদ্ধান্তের মান্যতা দিয়ে পুরস্কার গ্রহণ করতে অস্বীকার করেছেন। কেরালার মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই রাজ্য সরকারের অধীনে একটি সম্মিলিত লড়াই ছিল। কিন্তু ম্যাগসেসে ফাউন্ডেশন শৈলজাকে একজন ব্যক্তি হিসাবে এই পুরস্কারের জন্য বিবেচনা করে।

- with inputs from IANS

কে কে শৈলজা
দেশের স্বাস্থ্য পরিষেবা এখনও উন্নত নয়, অবিলম্বে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বাড়ানো উচিৎ - কে কে শৈলজা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in