Madhya Pradesh: মধ্যপ্রদেশে ভয়াবহ অনার কিলিং, যুগলকে হত্যা করে দেহ নদীতে ফেললো মেয়ের বাবা

১৮ বছর বয়সী শিবানী এবং ২১ বছর বয়সী রাধেশ্যাম তোমরকে হত্যা করে চম্বলের এক কুমীর ভর্তি নদীতে ফেলে দেবার অভিযোগ উঠেছে। রাধেশ্যাম-এর সঙ্গে শিবানীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। যা নিয়ে আপত্তি ছিল শিবানীর পরিবারের।
ছবি প্রতীকী
ছবি প্রতীকীছবি সংগৃহীত

ভয়াবহ অনার কিলিং-এর সাক্ষী হল বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশ। রাজ্যের মোরেনা জেলার রতনবাসাই গ্রামে এই হত্যাকান্ড ঘটেছে। ঘটনায় ১৮ বছর বয়সী শিবানী তোমর এবং ২১ বছর বয়সী রাধেশ্যাম তোমরকে হত্যা করে চম্বলের এক কুমীর ভর্তি নদীতে ফেলে দেবার অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে রাধেশ্যাম-এর সঙ্গে শিবানীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। যা নিয়ে আপত্তি ছিল শিবানীর পরিবারের। এনডিটিভি-র এক প্রতিবেদন অনুসারে, পুলিশ জানিয়েছেন শিবানীর পরিবার বালুপুরা গ্রামের রাধেশ্যামের পরিবারের সম্পর্ক মেনে নিতে পারেনি। যার জেরে খুন হতে হয় এই যুগলকে।

বেশ কয়েকদিন ধরে ছেলে রাধেশ্যাম এবং শিবানী নিখোঁজ থাকার পর রাধেশ্যামের বাবা পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি সন্দেহ প্রকাশ করেন তাঁর ছেলে এবং ছেলের বান্ধবীকে মেরে ফেলা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান ছিল এই দুই যুবক-যুবতী পালিয়ে গেছে। এরপরেই মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকেও নিখোঁজ ডায়রি করা হয়।  

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদন অনুসারে, মোরেনার পুলিশ এবং রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা চম্বলের নদীতে দুই মৃতদেহর সন্ধানে তল্লাশি চালালেও কিছু খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পুলিশের সাব ডিভিশনাল অফিসার (এসডিওপি) জানিয়েছেন, ছেলেটির পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে শিবানীর বাবা এবং তাঁর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু করে পুলিশ। জেরার মুখে ভেঙে পড়েন শিবানীর বাবা রাজপাল সিং তোমর এবং পুলিশকে জানান তাঁর মেয়ে এবং মেয়ের বান্ধবীকে ধরে ফেলার পর তিনি তাঁদের দুজনকে খুন করে চম্বলের কুমীর ভর্তি নদীতে ফেলে দিয়েছেন।

শিবানীর বাবার স্বীকারোক্তি থেকে জানা গেছে গত ৩ জুন শিবানী এবং রাধেশ্যামকে গুলি করে হত্যা করা হয় এবং তাঁদের দুজনের দেহ ভারী পাথর দিয়ে বেঁধে চম্বলের নদীতে ফেলে দেওয়া হয়।

অতি সম্প্রতি দলিত হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস নেটওয়ার্ক এবং ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর ওমেন লিডারস অনার কিলিং বিষয়ক এক সমীক্ষা রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। যে রিপোর্ট অনুসারে ভারতের সাতটি রাজ্যে অনার কিলিং খুবই গুরুতর সমস্যা হিসেবে উঠে আসছে। যার মধ্যে আছে হরিয়ানা, গুজরাট, বিহার, রাজস্থান, তামিলনাড়ু, মহারাষ্ট্র এবং উত্তরপ্রদেশ। তথ্য অনুসারে ২০১৪ থেকে ২০১৬-র মধ্যে ভারতে ২৮৮টি অনার কিলিং-এর ঘটনা ঘটেছিল।

গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর এক সভায় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় জানিয়েছিলেন, ভারতে প্রতিবছর পরিবারের অমতে গিয়ে ভালোবাসা অথবা বিয়ে করার জন্য প্রায় ১০০ জনকে অনার কিলিং-এর শিকার হতে হয়।  

GOOGLE NEWS-এ Telegram-এ আমাদের ফলো করুন। YouTube -এ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in