Lakhimpur Kheri: দেশকে বলুন মন্ত্রী এখনও বরখাস্ত নয় কেন? - প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন প্রিয়াঙ্কার

প্রধানমন্ত্রীর কছে তাঁর প্রশ্ন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে কেন বরখাস্ত করা হয়নি? কেন গ্রেফতার করা হয়নি মন্ত্রীর ছেলেকে, যার বিরুদ্ধে লখিমপুর খেরিতে কৃষকদের পিষে মারার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে।
Lakhimpur Kheri: দেশকে বলুন মন্ত্রী এখনও বরখাস্ত নয় কেন? - প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন প্রিয়াঙ্কার
প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢরাছবি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢরার ট্যুইটার ভিডিও থেকে স্ক্রীনশট

লখিমপুর খেরির ঘটনা প্রসঙ্গে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী মঙ্গলবার তাঁর বক্তব্যের ভিডিও প্রকাশ করলেন। প্রধানমন্ত্রীর কছে তাঁর প্রশ্ন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে কেন বরখাস্ত করা হয়নি? কেন গ্রেফতার করা হয়নি মন্ত্রীর ছেলেকে যার বিরুদ্ধে লখিমপুর খেরিতে কৃষকদের পিষে মারার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে।

ভিডিওটিতে হিন্দীতে তিনি বলেছেন, 'মোদীজি,নমস্কার...আমি শুনেছি আজাদি কা অমৃৎ মহোৎসবে যোগ দিতে আপনি লখনৌ আসছেন। আমি আপনাকে জিজ্ঞেস করতে চাই আপনি এই ভিডিও দেখেছেন, আপনার সরকারের এক মন্ত্রীর ছেলে কৃষকদের পিষে দিয়েছে, এই ভিডিও দেখুন আর দেশকে বলুন এই মন্ত্রীকে কেন বরখাস্ত করা হয়নি আর এই ব্যক্তিকে কেন গ্রেফতার করা হয়নি।'

দুমিনিটের ভিডিওটিতে তিনি আরও বলেছেন মন্ত্রীর ছেলেকে গ্রেফতার করা হয়নি,অথচ বিরোধী নেতারা কারাগারে। প্রিয়াঙ্কা আরও বলেছেন, কৃষকরাই দেশের স্বাধীনতার জন্য তাঁদের প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন।

যে ঘটনা নিয়ে রবিবার উত্তরপ্রদেশের লখিমপুর খেরিতে হিংসা ছড়িয়ে পড়ে এদিন কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সেই ঘটনার ভিডিও প্রকাশ করা হয়। সোমবার রাত ১১.৩৩এ কংগ্রেসের অফিসিয়াল টুইটারে ভিডিওটি পোস্ট করা হয়।

কংগ্রেসের দাবি ভিডিওটি লখিমপুর খেরির ঘটনার। পুলিশ অবশ্য এখনও পর্যন্ত এই ভিডিও নিয়ে কোন মন্তব্য করেনি। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে সাদা জামা সবুজ পাগড়ি পরা এক কৃষক একটি জিপের ধাক্কায় বনেটের ওপর পড়ে যাচ্ছেন আর অন্যরা প্রাণ বাঁচাতে লাফ দিয়ে পাশে সরে যাচ্ছেন।

জিপটা এগিয়ে যাচ্ছে পেছনে একটা কালো এসইউভি। অন্তত ৬জনকে দেখা যাচ্ছে রাস্তার পাশে পড়ে আছে আর গাড়ি দুটো বেরিয়ে যাচ্ছে। টুইটে লেখা হয়েছে, মোদী সরকারের চুপ করে থাকাটাই সব বোঝাচ্ছে।

প্রিয়ঙ্কা প্রায় একদিনের বেশি সময় ধরে পুলিশি হেফাজতে। সোমবার সকালে তাঁকে সীতাপুরের হরগাঁওয়ে হেফাজতে নেওয়া হয়। পুলিশের সঙ্গে বচসার পরে প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে যাওয়া হয় পিএসি গেস্ট হাউসে আর সেখানেই তিনি এখনও পর্যন্ত আছেন। গেস্ট হাউসের বাইরে বসে আছে কয়েকশো কংগ্রেস কর্মী নেত্রীর মুক্তির অপেক্ষায়।

প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন মুক্তি পাবার সঙ্গে সঙ্গে তিনি লখিমপুর খেরিতে গিয়ে শোকসন্তপ্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন।

এই প্রসঙ্গে আরও একটি বিষয় সামনে এসেছে। এক বিশিষ্ঠ আধিকারিক জানিয়েছেন সরকারের কাছে খবর আছে প্রিয়ঙ্কা আটক থাকাকালীন ফোনে কয়েকটি নিউজ চ্যানেলের সঙ্গে কথা বলেছেন। ঘটনার তদন্ত চলছে। দোষী চ্যানেলগুলি ও যারা এই সাক্ষাৎকারের ব্যবস্থা করে দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

- with Agency Inputs

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.