Lakhimpur Kheri: মন্ত্রীপুত্রের বন্দুক থেকেই কৃষকদের উপর গুলি চলেছিল, ফরেনসিক রিপোর্টে চাপে BJP

প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ ছিল, ঘটনার পর মন্ত্রীপুত্র ও তাঁর সঙ্গীরা কৃষকদের লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলিও চালান। সেই দাবিকেই মান্যতা দিয়েছে ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবের ব্যালিস্টিক রিপোর্ট।
মন্ত্রীপুত্র আশীষ মিশ্র (ইনসেটে)
মন্ত্রীপুত্র আশীষ মিশ্র (ইনসেটে)ফাইল চিত্র

ফরেনসিক রিপোর্টে শেষপর্যন্ত প্রকাশ্যে এল লখিমপুর খেরিতে কৃষক হত্যার ঘটনার আসল সত্য। ওইদিন কৃষকদের উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রের ছেলের বন্দুক থেকে গুলি চলেছিল। ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাব জানাচ্ছে, মন্ত্রীর ছেলে আশীষ মিশ্র এবং তার বন্ধু অমিত দাসকে গ্রেফতার করার সময় যে তিনটি আগ্নেয়াস্ত্র পুলিশ বাজেয়াপ্ত করে, সেগুলি থেকেই গুলি করেছিল।

সোমবারই যোগী আদিত্যনাথের সরকারকে এই ঘটনায় টালবাহানা করার জন্য সুপ্রিম কোর্ট ভর্ৎসনা করে। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই এই নয়া তথ্যে ঘটনা নতুন মোড় নিল। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ রিপোর্টের ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া না দিলেও জানিয়েছে, আদালতে রিপোর্ট পেশ করা হবে।

এতদিন বারবার ঘটনার তদন্ত প্রক্রিয়ায় ঢিলেমি হচ্ছে বলে বিরোধীরা অভিযোগ তুলেছিল। কৃষকরা মন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি জানিয়ে বারবার সরব হয়েছিলেন। যদিও মন্ত্রী দাবি ছিল, ওটা ষড়যন্ত্র। এদিন ফরেনসিক রিপোর্ট প্রকাশ হবার পর স্বাভাবিকভাবেই এখন বিরোধীরা সেই রিপোর্টকে হাতিয়ার করে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ চালিয়েছে।

কৃষকদের পাশাপাশি কংগ্রেসও অজয়ের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছে। তবে বিজেপির পক্ষ থেকে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। আর সেটাকে হাতিয়ার করে বিরোধীদের বক্তব্য, মন্ত্রীর মাথায় বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের হাত রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ ছিল, ঘটনার পর তিনি ও তাঁর সঙ্গীরা কৃষকদের লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলিও চালান। সেই দাবিকেই মান্যতা দিয়েছে ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবের ব্যালিস্টিক রিপোর্ট। স্পষ্ট জানানো হয়েছে, সেদিন আশিস মিশ্রের লাইসেন্সপ্রাপ্ত বন্দুক থেকে গুলি চলে। আশিসের সঙ্গী অঙ্কিত দাসের লাইসেন্সপ্রাপ্ত ‘রিপিটার গান’ এবং পিস্তলেও মিলেছে ‘ফায়ারিং মার্ক’। লখিমপুর কাণ্ডে আশিস, অঙ্কিত সহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

মন্ত্রীপুত্র আশীষ মিশ্র (ইনসেটে)
Lakhimpur Kheri: বিশেষ অভিযুক্তকে বাঁচানোর চেষ্টা হচ্ছে, যোগী প্রশাসনকে তিরস্কার সুপ্রিম কোর্টের

GOOGLE NEWS-এ Telegram-এ আমাদের ফলো করুন। YouTube -এ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in