Lakhimpur Kheri: জিজ্ঞাসাবাদের সময় গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন এড়িয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ছেলে আশিস মিশ্র

লখিমপুর খেরি কান্ডে শনিবার রাত ১০.৫০ মিনিটে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্র টেনির ছেলে আশিস মিশ্রকে। দীর্ঘ ১২ ঘণ্টা জেরা করার পর তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
Lakhimpur Kheri: জিজ্ঞাসাবাদের সময় গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন এড়িয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ছেলে আশিস মিশ্র
লখিমপুর খেরি কান্ডে অভিযুক্ত আশিস মিশ্রফাইল ছবি, রাহুল গান্ধির ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

লখিমপুর খেরি কান্ডে দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর শনিবার রাত ১০.৫০ মিনিটে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্র টেনির ছেলে আশিস মিশ্রকে। দীর্ঘ ১২ ঘণ্টা জেরা করার পর তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রবিবার রাত ১টা নাগাদ তাঁকে জেলে নিয়ে যাওয়া হয়।

লখিমপুর খেরি কান্ডে তদন্তকারী দলের এক আধিকারিকের বক্তব্য অনুসারে, গত ৩ অক্টোবর ঘটনার দিন আশিস মিশ্র দুপুর ২.৩০ থেকে ৩.৩০ পর্যন্ত কোথায় ছিলেন তা জানাতে পারেননি। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য অনুসারে দুপুর ২টো থেকে ৪টে পর্যন্ত তিনি নিখোঁজ ছিলেন। যদিও তাঁর মোবাইলের লোকেশন অনুসারে তিনি ঘটনাস্থলের আশেপাশেই ছিলেন।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ছেলে আশিস মিশ্র যে এসইউভি গাড়ি কৃষকদের চাপা দিয়েছে সেই গাড়ি তাঁরই। যদিও ঘটনার সময় তিনি গাড়িতে ছিলেন না। এমনকি নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্য তিনি অন্য এক কুস্তি প্রতিযোগিতার প্রায় ১৫০ ছবি তদন্তকারী টিমের সামনে পেশ করেছেন। তাঁর দাবি, তিনি ঘটনার সময় ওই কুস্তি প্রতিযোগিতায় উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ আধিকারিকদের সূত্র অনুসারে, জিজ্ঞাসাবাদের সময় প্রতিটি প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানিয়েছেন – কৃষকদের গাড়ি চাপা দেবার ঘটনার সময় তিনি সেখানে ছিলেন না। তাঁকে যখন জিজ্ঞাসা করা হয় কে ওই এসইউভি গাড়ি চালাচ্ছিলো – তার উত্তরেও তিনি জানান – তিনি সেখানে ছিলেন না। তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হয় গাড়িতে কতজন ছিলেন – উত্তরে তিনি জানান তিনি সেখানে ছিলেন না।

গতকাল জিজ্ঞাসাবাদের সময় তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হয় কৃষকদের ধাক্কা মারার পর গাড়ি কেন থামানো হয়নি। যার উত্তরে তিনি জানান – আমি সেখানে ছিলাম না। জিজ্ঞাসাবাদ চলাকালীন একসময় মেজাজ হারিয়ে ফেলেন আশিস মিশ্র এবং তদন্তকারী দলকে জানান – আপনারা আমাকে লক্ষবার জিজ্ঞেস করলেও আমার উত্তর একই থাকবে। এমনকি তাঁর সঙ্গে থাকা ব্যক্তিদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র থাকা প্রসঙ্গেও তিনি কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন।

লখিমপুর খেরির ঘটনায় নিহত দুই কৃষকের পরিবারের দাবি – মৃতদের শরীরে বুলেট ইনজুরি ছিলো। যদিও ময়না তদন্তের রিপোর্টে সেই দাবি অস্বীকার করা হয়েছে। তবে ঘটনাস্থল থেকে ৩১৫ বোর রাইফেলের দুটি খালি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্তকারী অফিসাররা যা থেকে মনে করছেন ঘটনাস্থলে গুলি অবশ্যই চলেছিলো।

তদন্তকারী অফিসাররা আরও জানতে পেরেছেন যে, যে কুস্তি প্রতিযোগিতায় আশিস মিশ্র উপস্থিত ছিলেন বলে দাবি করছেন তা লখিমপুর খেরির ঘটনার আগেই শেষ হয়ে গেছিলো।

জিজ্ঞাসাবাদের সময় তিনি সহযোগিতা করছেন না বলে তাঁকে জানানো হলে আশিস মিশ্র তদন্তকারী অফিসারদের জানান – আমাকে যখন দরকার হবে ডাকলেই আসবো। আমি কোনো অপরাধী নই। আমি একজন রাজনীতিবিদের ছেলে এবং একজন ব্যবসায়ী।

প্রসঙ্গত, সুপ্রিম কোর্ট উত্তরপ্রদেশ সরকারকে লখিমপুর খেরির ঘটনা নিয়ে তীব্র তিরস্কার করার পরেই তদন্ত গতি পেয়েছে। ইতিমধ্যেই লখিমপুর খেরির ঘটনা নিয়ে জাতীয় স্তরেও তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। এই ঘটনায় মন্ত্রীপুত্র আশিস মিশ্র ছাড়াও লব কুশ এবং আশিস পান্ডে নামের আরও দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশের সূত্র অনুসারে ধৃত অপর দুই ব্যক্তি ঘাতক গাড়িতে ছিলেন।

এর আগে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ জানিয়েছিলেন – তাঁর সরকার শুধুমাত্র অভিযোগের ভিত্তিতে কাউকে গ্রেপ্তার করবে না।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.