কর্ণাটকে 'রাজ্য সঙ্গীতের অপমান', সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের

সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান রোহিত চক্রতীর্থের পাশে দাঁড়িয়েছে কর্ণাটকের বিজেপি সরকার। শিক্ষামন্ত্রী বি সি নাগেশ জানিয়েছেন, রাজ্য সঙ্গীতের বিকৃতি অন্য কেউ করেছে। রোহিত কেবল পোস্টটি শেয়ার করেছিলেন।
কর্ণাটকে 'রাজ্য সঙ্গীতের অপমান', সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের
রোহিত চক্রতীর্থ

কর্ণাটক পুস্তক বিতর্কে নয়া মোড়। সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান রোহিত চক্রতীর্থের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে পুলিশের কাছে। বুধবার, বেঙ্গালুরুর কুবন পার্ক থানায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন সমাজকর্মী বিটি নাগান্না। অভিযোগ, কর্ণাটকের আঞ্চলিক সঙ্গীতকে অপমান করেছেন রোহিত চক্রতীর্থ।

পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগে জানানো হয়েছে, ‘রোহিত চক্রতীর্থ এমন একজন ব্যক্তি, যিনি রাজ্য সঙ্গীতের অবমাননা করেছেন। কংগ্রেস পার্টি এবং দেশকে আরব বিশ্বের সঙ্গে সমান করেছেন তিনি। তাকে পাঠ্যপুস্তক পুনর্বিবেচনা কমিটির চেয়ারম্যান পদে বসানো যায় না।’

আরও অভিযোগ করা হয়, ‘দেশের সর্বশ্রেষ্ঠ কন্নড় কবি কুভেম্পু লিখেছিলেন, ‘ভারত জনানিয়া তনুজাতে জয়া হে কর্ণাটক মাতে’ (কর্ণাটক মাতা তোমার জয়, তুমি ভারত মাতার কন্যা)। এটি একটি রাজ্য সঙ্গীত, তা বিকৃত করা হয়েছে।’

এই কবিতাটিকে রাজ্য সঙ্গীতের মর্যাদা দিয়েছে কর্ণাটক সরকার। কবিতাটি কর্ণাটকের অবস্থান স্পষ্ট করে। যেখানে ফুটে উঠেছে, ভারতের অন্যন্য রাজ্যগুলির সঙ্গে বোন হিসাবে কর্ণাটক সহাবস্থানে বিশ্বাসী। এটি নিরাপত্তা এবং ভয়ের পরিবর্তে রাজ্যের আত্মবিশ্বাস এবং শক্তির অবস্থান তুলে ধরে। এটি রাজ্যের আত্মসম্মান এবং মর্যাদার প্রতীকও।

নাগান্না দাবি করেছেন, ‘এই রাজ্য সঙ্গীতের ব্যঙ্গাত্মক থিম / অর্থ দিয়েছেন রোহিত চক্রতীর্থের মতো একজন ‘অকথ্য ব্যক্তি’। তিনি আমাদের মহান রাজ্য, কংগ্রেস (রাজনৈতিক দল) এবং ভারতকে আরবের সাথে তুলনা করেছেন। তিনি আমাদের রাজ্য এবং দেশের প্রতি সম্পূর্ণ অসম্মান প্রদর্শন করেছেন।‘

একইসঙ্গে অভিযোগ করা হয়েছে, ‘রোহিত চক্রতীর্থের আমাদের গর্বের তুঙ্গা নদীর সাথে অ্যারাক (মদের) তুলনা করেছেন। তিনি বোঝাতে চেয়েছেন, কর্ণাটক একটি মাতালদের জায়গা। তিনি বলেছেন, কর্ণাটকের লোকেরা বোকা এবং তাদের কোন উৎসাহ নেই।‘

জানা যাচ্ছে, বিভিন্ন ধর্মীয় গোষ্ঠীর মধ্যে শত্রুতা প্রচার এবং সাধারণ মানুষের অনুভূতিকে ইচ্ছাকৃত অপমান করার অভিযোগ আনা হয়েছে রোহিত চক্রতীর্থের বিরুদ্ধে। তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির ১২৪-এ, ১৫৩-এ, ২৯৫, ২৯৫-এ এবং ৫০৪ ধারায় তাঁকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

তবে, এই পরিস্থিতিতে সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান রোহিত চক্রতীর্থের পাশে দাঁড়িয়েছে কর্ণাটকের বিজেপি সরকার। শিক্ষামন্ত্রী বি সি নাগেশ জানিয়েছেন, রাজ্য সঙ্গীতের বিকৃতি অন্য কেউ করেছে। রোহিত চক্রতীর্থ কেবল পোস্টটি শেয়ার করেছিলেন।

রোহিত চক্রতীর্থ
Karnataka: দলের অন্দরে ক্রমশই বাড়ছে ক্ষোভ, কর্ণাটকে ‘হাত’ ছাড়ছেন একাধিক প্রবীন নেতা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in