BCCI-এ জয় শাহ কেন? ‘পরিবার তন্ত্র’ নিয়ে বিজেপিকে নিশানা বিরোধীদের

TRS বলে, ‘প্রধানমন্ত্রী শুধুমাত্র পরিবারতন্ত্রের কথা বলেন। যদি তাই হয়, তাহলে জয় শাহ (কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ছেলে) কেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে নেতৃত্ব দেবেন?
BCCI-এ জয় শাহ কেন? ‘পরিবার তন্ত্র’ নিয়ে বিজেপিকে নিশানা বিরোধীদের
নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহের সাথে জয় শাহ

‘পরিবার তন্ত্র’ নিয়ে কংগ্রেসকে প্রায়শই নিশানা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে বৃহস্পতিবার, তেলেঙ্গানায় পা রেখে ‘পরিবার তন্ত্র’ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওকে (কেসিআর) নিশানা করেছিলেন তিনি। যা নিয়ে বেজায় চড়েছে কেসিআরের দল। পাল্টা হিসাবে বিজেপির বিরুদ্ধে পাল্টা ‘পরিবার তন্ত্রের’ অভিযোগ এনেছেন কেসিআরের দলের মুখপত্র কৃশাঙ্ক মান্নে। শুক্রবার তিনি দাবি করেন, ‘দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নয়, শুধুমাত্র বিজেপির নেতা হিসাবে কথা বলেন নরেন্দ্র মোদী।’

পরিবারতন্ত্র নিয়ে মোদীর বক্তব্যের সুত্র ধরে এদিন কৃশাঙ্ক মান্নে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শুধুমাত্র পরিবারতন্ত্রের কথা বলেন। যদি তাই হয়, তাহলে জয় শাহ (কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ছেলে) কেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে নেতৃত্ব দেবেন? যদি তাঁরা পরিবারতন্ত্রে বিশ্বাস না করেন, তাঁদের উচিত রাজনাথ সিং ও তার ছেলেকে বহিস্কার করা। কি করে এঁরাই আবার তেলেঙ্গানার কথা বলে?’

বৃহস্পতিবার, প্রধানমন্ত্রী মোদীকে এড়িয়ে বেঙ্গালুরুতে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেবগৌড়ার সঙ্গে দেখা করতে যান তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও। সেই সাক্ষাৎ সেরে মোদীর মন্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন কেসিআর। তিনি বলেন, ‘ভাষণ বাজি অনেক হয়েছে। যেখানে দেশের অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে। অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর কোনও লক্ষণ নেই। কৃষক, দলিত ও আদিবাসীরা অসন্তুষ্ট হচ্ছেন। তবে দেশে পরিবর্তন আসবে। দেশ বদলাবেই। আর দেশ যাতে বদলায়, সে জন্য আমাদের সব রকম চেষ্টা করতে হবে।’

কি বলেছিলেন নরেন্দ্র মোদী?

বৃহস্পতিবার, হায়দ্রাবাদে পা রেখেই তেলেঙ্গানায় ‘পরিবার তন্ত্র’ নিয়ে চন্দ্রশেখর রাওকে নিশানা করে মোদী। এক সমাবেশে তিনি বলেন, ‘শুধুমাত্র নিজের পরিবারের কথা ভাবছিল পরিবারতন্ত্রবাদী দলগুলি। তেলেঙ্গানার মানুষের কথা ভাবেনি তারা। পরিবারতন্ত্রবাদী দলগুলির কারণে দেশের তরুণরা রাজনীতিতে সুযোগ পাচ্ছে না।‘ আর মোদীর এই মন্ত্যবে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

সূত্রের খবর, তাঁকে স্বাগত না জানানোয় এবং তাঁর সাক্ষাৎ এড়ানোয় চন্দ্রশেখরের উপর বেজায় চটেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। চার মাস আগেও এক বার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ এড়িয়ে গিয়েছিলেন কেসিআর। সেই বিষয়টি আবার ঘটায় ক্ষুব্ধ নরেন্দ্র মোদী।

তবে বর্তমানে বিরোধী রাজনীতিতে অতিসক্রিয় হতে দেখা যাচ্ছে কেসিআরকে। সম্প্রতি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়ালের সঙ্গে দেখা করেছেন তিনি। পঞ্জাবে গিয়েও সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মানের সঙ্গে এক মঞ্চে কৃষকদের সঙ্গে সভা করেছেন। এরপর বৃহস্পতিবার, কর্ণাটকে গিয়ে JD(S) নেতা দেবগৌড়া ও কুমারস্বামীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি। এই সাক্ষাৎ নিয়ে কেসিআর জানিয়েছেন, ‘আমি দেবগৌড়া ও কুমারস্বামীর সঙ্গে দেখা করেছিলাম। সব কিছু নিয়েই আলোচনা হয়েছে। শীঘ্রই জাতীয় স্তরে বড় পরিবর্তন হতে চলেছে।‘

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in