পাঞ্জাবে পুরসভা ভোটে কংগ্রেসের জয়জয়কার, ধরাশায়ী বিজেপি

রাজ্যের সাত মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ৩৫১ ওয়ার্ডের মধ্যে কংগ্রেস জয়ী হয়েছে ২৭১টিতে। অন্যদিকে রাজ্যের ১০৯ মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিল ও নগর পঞ্চায়েতে ১০৭৮ ওয়ার্ডে জয়ী হয়েছে কংগ্রেস।
পাঞ্জাবে পুরসভা ভোটে কংগ্রেসের জয়জয়কার, ধরাশায়ী বিজেপি
ছবি প্রতীকী, ন্যাশনাল হেরাল্ডের সৌজন্যে

পাঞ্জাবের পুরসভা নির্বাচনে বিজেপিকে ধুয়েমুছে সাফ করে দিল কংগ্রেস। আটটি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের মধ্যে সাতটিতেই জয়ী হয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি। এগুলি হল মোগা, হোসিয়ারপুর, কাপুরথালা, আবোহার, পাঠানকোট, বাতালা এবং ভাতিন্দা। বাকি একটি কেন্দ্র মোহালির দুটি বুথে আজকে পুনরায় ভোটগ্রহণ হওয়ায়, আগামীকাল এই কেন্দ্রের ভোটগণনা হবে।

রাজ্যের সাত মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ৩৫১ ওয়ার্ডের মধ্যে কংগ্রেস জয়ী হয়েছে ২৭১টিতে। শিরোমণি আকালি দলের সংগ্রহে ৩৩ আসন। বিজেপির ২০, নির্দল ১৮ এবং আম আদমি পার্টি ৯ আসনে জয়লাভ করেছে।

অন্যদিকে রাজ্যের ১০৯ মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিল ও নগর পঞ্চায়েতে ১০৭৮ ওয়ার্ডে জয়ী হয়েছে কংগ্রেস। শিরোমণি আকালি দল পেয়েছে ২৫১ আসন। আপ ৫০ এবং ২৯ আসনে বিজেপি জয়ী হয়েছে। নির্দল প্রার্থীরা জিতেছেন ৩৭৫ আসনে।

পুরসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের এই জয়কে আইসবার্গের চূড়ার সাথে তুলনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ক‍্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং। কংগ্রেসের তরফ থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ক‍্যাপ্টেন জানিয়েছেন, "পুরসভা নির্বাচনে শিরোমণি আকালি দল, বিজেপি এবং আম আদমি পার্টি যে ঝটকা পেয়েছে, তা আইসবার্গের চূড়ামাত্র। তিনটি দলকেই পাঞ্জাবের রাজনৈতিক আঙিনা থেকে মুছে ফেলা হবে এবং ভবিষ‍্যতে দেশের রাজনৈতিক মানচিত্র থেকেও মুছে ফেলা হবে।"

তিনি আরো বলেন, "এই ফলাফল বলে দিচ্ছে আর এক বছর পর বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল কী হতে চলেছে। এই তিনটি দলকে পাঞ্জাবের বাইরে রাখার জন্য এটা একটা শক্তিশালী বার্তা। এরা রাজ‍্যবাসীর সাথে যে ছলনা ও বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, তা রাজ‍্যবাসী ভুলবে না বা এদেরকে ক্ষমা করবে না।" শিরোমণি আকালি দলের ভাটিন্ডা কেন্দ্রে ৫৩ বছর পর জয়ী হয়েছে কংগ্রেস। কৃষি আইন নিয়ে মতবিরোধের জেরে সম্প্রতি দীর্ঘদিনের বন্ধু বিজেপির সাথে সম্পর্ক ত‍্যাগ করেছে আকালি দল।

পাঞ্জাব কংগ্রেসের প্রধান সুনীল জাখর এই জয় প্রসঙ্গে বলেছেন, জনগণ বিজেপি, আপ, আকালি দলের "নেতিবাচক রাজনীতি" প্রত‍্যাখান করেছেন। আমরা উন্নয়নের এজেন্ডায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছি। এই জয় আমাদের কর্মীদের কঠোর পরিশ্রম করার জন্য উৎসাহিত করবে।"

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in