সোশ্যাল মিডিয়ায় সরকার বিরোধী পোষ্ট করলেই মামলা - মুখ্যমন্ত্রী হিটলারের পথে চলছেন - তেজস্বী যাদব

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিহার সরকার, মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে আপত্তিজনক ও মানহানিকর পোস্ট করলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার ও কঠোর ব্যবস্থার নির্দেশ নীতীশ কুমারের। সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ তেজস্বী যাদবের।
সোশ্যাল মিডিয়ায় সরকার বিরোধী পোষ্ট করলেই মামলা - মুখ্যমন্ত্রী হিটলারের পথে চলছেন - তেজস্বী যাদব
তেজস্বী যাদব ও নীতিশ কুমারফাইল ছবি সংগৃহীত

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিহার সরকার ও মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে আপত্তিজনক ও মানহানিকর পোস্ট করলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার এবং কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। এই ধরনের পোস্টগুলিকে সাইবার ক্রাইম বিভাগের আওতায় আনার জন্য রাজ‍্য পুলিশের অর্থনৈতিক অপরাধ শাখাকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

অর্থনৈতিক অপরাধ শাখার প্রধান আইজি নায়ার হাসনাইন খান, গতকাল রাজ‍্য সরকারের সমস্ত সচিবকে এই বিষয়ে একটি চিঠি লিখেছেন। চিঠিতে সমস্ত ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় যে কোনো ধরনের আপত্তিজনক পোস্ট সম্পর্কে অর্থনৈতিক অপরাধ শাখাকে যেন অবহিত করেন তাঁরা, যাতে অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনা যায়।

চিঠিতে আইজি খান লিখেছেন, "বেশ কয়েকজন ব‍্যক্তি ও নির্দিষ্ট কিছু সংস্থা বিহার সরকার, সম্মানিত মন্ত্রী, সাংসদ, বিধায়ক এবং সরকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপত্তিজনক ও অবমাননাকর মন্তব্য করে আসছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। এটি নির্ধারিত আইনের পরিপন্থী এবং এই পোস্টগুলো সাইবার ক্রাইম বিভাগের অধীনে আনা হয়েছে।"

নীতিশ কুমারের এই সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছেন বিরোধী নেতা তেজস্বী যাদব। ট‍্যুইটারে তিনি লেখেন, "৬০ কেলেঙ্কারির স্রষ্টা নীতিশ কুমার দুর্নীতির ভীষ্ম পিতামহ, ভয়ানক অপরাধীদের রক্ষাকর্তা, অনৈতিক ও অবৈধ সরকারের প্রধান। বিহার পুলিশ মদ বিক্রি করে। অপরাধীদের বাঁচানোর জন্য নিরীহদের ফাঁসিয়ে দেয়। আমি মুখ‍্যমন্ত্রীকে চ‍্যালেঞ্জ করছি - এই পোস্টের জন্য পারলে আমাকে গ্রেফতার করুন।"

পরের একটি ট‍্যুইটে তিনি লেখেন, "হিটলারের পদচিহ্ন অনুসরণ করে চলা মুখ্যমন্ত্রীর পদক্ষেপগুলি - বিক্ষোভের জন্য নির্দিষ্ট করা জায়গাতেও বিক্ষোভ দেখানো যাবে না। সরকার-বিরোধী পোস্ট করলেই জেল হবে। সাধারণ মানুষ তাঁদের সমস্যা নিয়ে বিরোধী দলের নেতার সাথে দেখা করতে পারবেন না। নীতিশ জি, কিছু তো লজ্জা পান।"

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in