উত্তরপ্রদেশ: 'লাড্ডু মার হোলি' উৎসবে হাজার হাজার মানুষের ভিড়, অধিকাংশেরই মুখে নেই মাস্ক

কোভিডবিধি মানা তো দুরস্ত, সামান্যতম ব্যবধানও নেই তাঁদের মধ্যে। কারও মুখে মাস্কও নেই। করোনা-পূর্ব সময়কালের মতোই তাঁরা সেখানে হাজির হয়েছেন। লাড্ডু নেওয়ার জন্য হুড়োহুড়ি লেগে গিয়েছে সবার মধ্যে।
উত্তরপ্রদেশ: 'লাড্ডু মার হোলি' উৎসবে হাজার হাজার মানুষের ভিড়, অধিকাংশেরই মুখে নেই মাস্ক
ছবি সৌজন্য ট্যুইটার

দেশে করোনা সংক্রমণের হার ফের ঊর্ধ্বমুখী এবং চিন্তার বিষয়। বেশ কয়েকটি রাজ্যের অবস্থা যথেষ্ট উদ্বিগ্নের। এই পরিস্থিতিতে সোমবার উত্তরপ্রদেশের শ্রীরাধারানী মন্দিরে উদযাপন করা হল 'লাড্ডু মার হোলি' উৎসব। মথুরা ও বারসানার বিখ্যাত 'লাঠ মার হোলি'র একদিন আগে 'লাড্ডু মার হোলি' উৎসব পালিত হয়। একটি সর্বভারতীয় সংবাদসংস্থা এই অনুষ্ঠানের একটি ভিডিও শেয়ার করেছে। ভিডিওটি ভাইরালও হয়। তাতে যে চিত্র ধরা পড়েছে, তা দেখে আঁতকে উঠেছেন আপামর দেশবাসী।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বার্সানার একটি মন্দিরের সামনে ভিড় জমিয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে আছেন তাঁরা। মন্দিরের কর্মীরা তাঁদের উদ্দেশে লাড্ডু ছুড়ে দিচ্ছেন। ওই জনসমুদ্রের লাড্ডু নেওয়ার জন্য হুড়োহুড়ি লেগে গিয়েছে সবার মধ্যে। তিল ধারণের জায়গাটুকুও নেই। কোভিডবিধি মেনে দূরত্ব বজায় রাখা তো দুরস্ত, সামান্যতম ব্যবধানও নেই তাঁদের মধ্যে। আর কারও মুখে মাস্কও নেই। করোনা-পূর্ব সময়কালের মতোই তাঁরা সেখানে হাজির হয়েছেন।

ভিডিওতে আরও দেখা যাচ্ছে, ওই জনসমুদ্রে আছে পুরুষ-মহিলা, এমনকী শিশুও। সবাই লাড্ডু নেওয়ার চেষ্টা করছেন। একে অপরকে লাড্ডু ছুঁড়ে মারছেন। কিন্তু কেউই কোভিডবিধি মেনে চলছেন না। করোনা নিয়ে তাঁদের ভাবনা আছে বলেও ভিডিওটিতে মনে হচ্ছে না। করোনা প্রতিরোধে বড় ধরনের উৎসব, সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে আগেই। তবুও কীভাবে এই জনসমুদ্র তৈরি হল, তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

ভিডিওটি ভাইরাল হতেই টুইটারে সমালোচনার ঝড় বইয়ে দিয়েছেন নেটিজেনরা। "এটি কি রসিকতা হচ্ছে?" "স্থানীয় প্রশাসন কী করছে?" তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in