Gyanvapi Mosque: নমাজ বন্ধ করা যাবে না, নির্দেশ SCর - বিতর্কিত অ্যাডভোকেট কমিশনার অজয়কে সরালো আদালত

শীর্ষ আদালত স্পষ্টভাবে জানিয়েছে, ‘নামাজ বা ওজুর মতো ধর্মীয় রীতি পালনের জন্য মুসলিমদের প্রবেশ করতে দিতে হবে। সেখানে নামাজ পড়তে পারবে বলে যে নির্দেশ দিয়েছিলেন নিম্ন আদালতের বিচারক, তা কার্যকর হবে।’
Gyanvapi Mosque: নমাজ বন্ধ করা যাবে না, নির্দেশ SCর - বিতর্কিত অ্যাডভোকেট কমিশনার অজয়কে সরালো আদালত
জ্ঞানবাপী মসজিদফাইল ছবি

জ্ঞানবাপী মসজিদের ‘শিবলিঙ্গ’ এলাকায় নিরাপত্তা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। সেইসঙ্গে, নামাজের জন্য মুসলিমদের মসজিদে প্রবেশেরও অনুমতি দিয়েছে শীর্ষ আদালত। মঙ্গলবার, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় এবং বিচারপতি পিএস নরসীমার ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছেন, ‘বারাণসী আদালত নিযুক্ত কমিশনারের সমীক্ষায় মসজিদ চত্বর থেকে যে শিবলিঙ্গ পাওয়া গিয়েছে, সেই এলাকার সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। তবে তাতে যেন মুসলিমদের প্রবেশের ক্ষেত্রে কোনওরকম বাধা তৈরি না হয়, তাও নিশ্চিত করতে হবে বারাণসীর জেলাশাসককে।’ আগামী ১৯ মে ফের এই মামলার শুনানি হবে।

এদিনের রায়ে শীর্ষ আদালত স্পষ্টভাবে জানিয়েছে, ‘নামাজ বা ওজুর মতো ধর্মীয় রীতি পালনের জন্য মুসলিমদের প্রবেশ করতে দিতে হবে। এই পরিস্থিতিতে সেখানে নামাজ পড়তে পারবে বলে যে নির্দেশ দিয়েছিলেন নিম্ন আদালতের বিচারক, তা কার্যকর হবে।’

বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় শুনানি চলাকালীন এদিন বারাণসীর প্রশাসনকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘জ্ঞানব্যাপী মসজিদের ঠিক কোথায় ‘শিবলিঙ্গ’ পাওয়া গেছে?’ জবাবে উত্তরপ্রদেশ সরকারের সলিসেটর জেনারেল তুষার মেহতা জানান, ‘আমারা এখনও রিপোর্ট দেখিনি’। এরপরেই সমীক্ষার রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য আদালতের কাছে সময়সীমার মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন জানান তিনি।

একইসঙ্গে, শীর্ষ আদালতে সলিসেটর জেনারেল মেহতা বলেন, ‘জ্ঞানব্যাপীর যে জায়গাটিতে 'শিবলিঙ্গ' পাওয়া গেছে সেখানে নামাজ পড়তে আসা ব্যক্তিদের পা লাগার ফলে যদি আইনশৃঙ্খলার সমস্যা হয়, তা এড়াতে সেই জায়গাটি সিল করে দেওয়া হয়েছে।’

খবরে প্রকাশ, 'শিবলিঙ্গ' একটি পুকুরে পাওয়া গেছে, যে পুকুরটিকে নামাজের আগে ‘ওজু’ বা শুদ্ধিকরণের জন্য ব্যবহৃত করে আসছে মুসলিমরা। এদিন মসজিদ কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, ওই পাথর ‘শিবলিঙ্গ’ নয় বরং এটি একটি ফোয়ারা। এবং কোন যুক্তিতে আদালতে সমীক্ষা রিপোর্ট প্রকাশের আগেই বারাণসী প্রশাসন উক্ত জায়গাটিকে সিল করেছে, তা নিয়েও শীর্ষ আদালতে প্রশ্ন তুলেছেন মসজিদ পরিচালনা কমিটির আইনজীবী হুজেফা আহমদি।

এদিকে আবার, সমীক্ষার সাথে যুক্ত থাকা অ্যাডভোকেট কমিশনার পদ থেকে অজয় ​​মিশ্রকে সরিয়ে দিয়েছে বারাণসী আদালত। জ্ঞানবাপী মসজিদ সমীক্ষার তথ্য সংবাদমাধ্যমে ফাঁস করার জন্য এই পদক্ষেপ নিয়েছে আদালত। জানা যাচ্ছে, তাঁর জায়গায় অ্যাডভোকেট কমিশনারের পদে আনা হয়েছে বিশাল সিংকে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in