Gujarat: গুজরাটে প্রশাসনিক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ধর্মঘটে ৪০ হাজার চিকিৎসক

ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (IMA) গুজরাট শাখার এই আন্দোলনের অংশ হিসাবে, ওপিডি, জরুরি পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। অন্যান্য রোগীদের চিকিৎসা এতে প্রভাবিত হবে না বলে সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
গুজরাটে বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা ধর্মঘটে
গুজরাটে বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা ধর্মঘটেছবি আহমেদাবাদ ম্যাটারস-এর ট্যুইটারের সৌজন্যে

গুজরাটে সরকারি নির্দেশের প্রতিবাদে ধর্মঘটে শামিল হলেন প্রায় ৪০ হাজার চিকিৎসক। শুক্রবার রাজ্যের বেসরকারী হাসপাতালের প্রায় ৪০ হাজার চিকিৎসকের এই ধর্মঘটের কারণে কমপক্ষে ৩০ হাজার অপারেশান স্থগিত করে দিতে হয়েছে। সমস্ত আইসিইউগুলিকে হাসপাতালের নীচতলায় স্থানান্তরের এক নতুন নির্দেশের প্রতিবাদে তাঁরা কাজ বন্ধ করে দেন। শুক্রবার সকাল ৮টায় শুরু হওয়া এই ধর্মঘট আগামীকাল সকাল ৮টা পর্যন্ত চলবে।

ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের গুজরাট শাখার ডাকা এই আন্দোলনের অংশ হিসাবে, ওপিডি এবং জরুরি পরিষেবাগুলিও বন্ধ রাখা হয়েছে। যদিও, অন্যান্য রোগীদের চিকিত্সা এতে প্রভাবিত হবে না বলে সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বিরোধের সূত্রপাত আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের অগ্নি নির্বাপণ সংস্থার এক নোটিশকে কেন্দ্র করে। রাজ্যের সমস্ত বেসরকারি হাসপাতালকে পাঠানো ওই নোটিশে বলা হয়েছে, সব হাসপাতালের আইসিইউ আগামী সাতদিনের মধ্যে হাসপাতালের নীচতলায় নিয়ে আসতে হবে। গুজরাট হাইকোর্টের এক মৌখিক নির্দেশের ভিত্তিতে বেশ কিছু নতুন নিয়মও জারি করা হয়েছে।

আহমেদাবাদ শহরের বেসরকারী হাসপাতালগুলিতে অগ্নি নিরাপত্তা সংক্রান্ত গুজরাট হাইকোর্টে একটি আবেদনের পরে, ফায়ার ব্রিগেড দ্বারা ওই নোটিশ দেওয়া হয় এবং হাসপাতালগুলি অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে এবং তারা অগ্নি নিরাপত্তাও পেয়েছে।

প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া সম্ভব নয় বলে দাবি করে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন, গুজরাট শাখা এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

এদিন রাজকোট সহ সৌরাষ্ট্র জুড়ে প্রায় ২ হাজার হাসপাতালের চিকিত্সকরা ধর্মঘট পালন করেছেন। গতকাল, ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সুরাট শাখার অফিস-আধিকারিক এবং সদস্যদের একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের চিকিৎসকদের মতে, নতুন নির্দেশ অনুযায়ী নীচতলায় আইসিইউ এবং এনআইসিইউ চালু করা সম্ভব হবে বলে মনে হচ্ছে না।

আহমেদাবাদ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের আধিকারিকদের পক্ষ থেকে কালেক্টর এবং মিউনিসিপ্যাল ​​কমিশনারের কাছে আপিলের চিঠি জমা দেওয়া হয়েছে। আহমেদাবাদ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সভাপতি ডাঃ মোনা দেশাই আইএএনএসকে জানিয়েছেন, আমাদের আপত্তির একমাত্র কারণ প্রশাসন হাইকোর্টের নিছক মৌখিক পরামর্শের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, সাত দিনের মধ্যে রাজ্যের হাসপাতালগুলিতে এমন পরিবর্তন করা বৈজ্ঞানিকভাবে সম্ভব নয়। তাদের উচিত চিকিৎসকদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা এবং এ ধরনের সিদ্ধান্তে আসার আগে সমীক্ষা ও চিন্তাভাবনা করা। আজ শুধু প্রতীকী ধর্মঘট হচ্ছে এবং এই নিয়ম প্রত্যাহার না হলে তুমুল বিক্ষোভ হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in