সুইস ব্যাংকে ভারতীয়দের টাকার পরিমাণে রেকর্ড বৃদ্ধি - রিপোর্ট অস্বীকার ভারত সরকারের
সুইস ব্যাঙ্কফাইল ছবি

সুইস ব্যাংকে ভারতীয়দের টাকার পরিমাণে রেকর্ড বৃদ্ধি - রিপোর্ট অস্বীকার ভারত সরকারের

অর্থ মন্ত্রক জানিয়েছে, ২০১৯ সালের শেষ থেকেই সুইস ব‍্যাঙ্কে ভারতীয় গ্রাহকদের আমানত কমতে শুরু করেছে। ২০২০ সালের শেষে মোট টাকার পরিমাণ বেড়েছে বন্ড, সিকিউরিটিজ এবং অন্যান্য কারণে।

২০২০ সালে সুইস ব্যাঙ্কে ভারতীয়দের আমানতের পরিমাণ ২৮৬ শতাংশ বেড়েছে, যা গত ১৩ বছরে সর্বোচ্চ। সম্প্রতি এই সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট মিডিয়াতে প্রকাশিত হয়েছে। যদিও এই রিপোর্টকে অস্বীকার করেছে ভারত সরকার।

আজ এক বিবৃতিতে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক জানিয়েছে, "১৮ জুন মিডিয়াতে কিছু প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, যেখানে বলা হয়েছে ২০২০ সালে সুইস ব‍্যাঙ্কে ভারতীয়দের টাকা বেড়ে হয়েছে ২০,৭০০ কোটি, ২০১৯ সালের শেষে যা ছিল ৬,৬২৫ কোটি টাকা। যেখানে আগের ২ বছর টাকার পরিমাণ কমেছিল। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, গত ১৩ বছরে এটাই সর্বোচ্চ আমানত।"

মন্ত্রক জানিয়েছে, মিডিয়াতে বলা হয়েছে যে অঙ্কের টাকা বৃদ্ধির কথা বলা হয় তা সুইস ন‍্যাশনাল ব‍্যাঙ্ক (SNB) কর্তৃক প্রকাশিত অফিসিয়াল ফিগার। এবং সেখানকার বিভিন্ন ব‍্যাঙ্ক থেকে তথ‍্য নিয়ে SNB এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে।‌ কিন্তু সবথেকে বিতর্কিত-আলোচিত বিষয় যেটা - সুইজারল‍্যান্ডে ভারতীয়দের কত কালো টাকা রয়েছে, সেই তথ্য রিপোর্টে উল্লেখ নেই।

অর্থ মন্ত্রক আরো জানিয়েছে, ২০১৯ সালের শেষ থেকেই সুইস ব‍্যাঙ্কে ভারতীয় গ্রাহকদের আমানত কমতে শুরু করেছে। ২০২০ সালের শেষে মোট টাকার পরিমাণ বেড়েছে অন‍্য কারণে। এই‌‌ বৃদ্ধি আসলে বন্ড, সিকিউরিটিজ এবং অন্যান্য ফিনান্সিয়াল ইন্সট্রুমেন্টসের কারণে হয়েছে।

যদিও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক যতই এই বিষয়টি অস্বীকার করার চেষ্টা করুক না কেন,‌ মোদী সরকারকে চাপে ফেলতে কংগ্রেস এই হাতিয়ার হাতছাড়া করছে না। গতকালই কংগ্রেসের পক্ষ থেকে কেন্দ্রের কাছে জানতে চাওয়া হয় গত সাত বছরে কত কালো টাকা ফেরত আনতে পেরেছে সরকার। কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিং সূরযওয়ালার প্রশ্ন, "মোদিজির কি ইচ্ছাশক্তি নেই? নাকি ওই সব অর্থ ওনার বন্ধুদেরই?"

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in