Elgar Parishad: স্ট্যান স্বামী ভেন্টিলেটর সাপোর্টে, মহারাষ্ট্র সরকারকে NHRC-র নোটিশ
স্ট্যান স্বামীফাইল ছবি সংগৃহীত

Elgar Parishad: স্ট্যান স্বামী ভেন্টিলেটর সাপোর্টে, মহারাষ্ট্র সরকারকে NHRC-র নোটিশ

স্ট্যান স্বামীকে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করতে হবে। রবিবার মহারাষ্ট্র সরকারকে এই নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন (NHRC)। বর্তমানে তাঁর শারীরিক অবস্থার রিপোর্ট চাওয়া হয়েছে।

স্ট্যান স্বামীকে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করতে হবে। রবিবার মহারাষ্ট্র সরকারকে এই নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন (NHRC)। বর্তমানে তাঁর শারীরিক অবস্থার একটি রিপোর্টও চেয়েছে সংস্থাটি। শারীরিক অবস্থার গুরুতর অবনতি হওয়ায় আপাতত তাঁকে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রাখা হয়েছে।

গত নয় মাস ধরে জেলে বন্দি রয়েছেন ৮৪ বছরের এই সমাজকর্মী। নিষিদ্ধ সিপিআই (মাওবাদী)-র হয়ে কাজ করার অভিযোগে এবং ২০১৭ সালের এলগার পরিষদ কান্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগে কঠোর UAPA আইনে গত বছর অক্টোবর মাসে তাঁকে গ্রেফতার করে এনআইএ। পার্কিনসন সহ একাধিক রোগে আক্রান্ত স্ট্যান স্বামী এর আগে অনেকবার জামিনের আবেদন জানিয়েছেন। কিন্তু আদালত প্রতিবার তা খারিজ করে দিয়েছে। একটি স্ট্র-এর জন‍্যও বহুবার আদালতে আবেদন জানাতে হয়েছে এই সমাজকর্মীকে। জেলে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরিষেবা পাচ্ছেন না বলে বারবার অভিযোগ তুলেছে তাঁর পরিবার।

রবিবার জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তরফ থেকে প্রকাশ করা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, "জেলবন্দী স্ট্যান স্বামীর (৮৪ বছর) স্বাস্থ্যের গুরুতর অবনতির অভিযোগ খতিয়ে দেখে, মানবাধিকার কমিশন মহারাষ্ট্র সরকারের মুখ‍্যসচিবকে নোটিশ জারি করেছে আজ। যেখানে তাঁকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, স্ট‍্যান স্বামীর জীবন বাঁচানো এবং তাঁর মৌলিক মানবাধিকার রক্ষার অংশ হিসেবে তাঁকে সঠিক স্বাস্থ্যসেবা ও চিকিৎসা দেওয়ার প্রতিটি সম্ভাব্য প্রচেষ্টা নিশ্চিত করতে হবে।"

জেল কর্তৃপক্ষের কড়া সমালোচনা করে বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, "এর আগে চলতি বছরের ১৬ মে একটি অভিযোগ পেয়েছিল কমিশন, যেখানে বলা হয়েছিল কোভিড মহামারী পর্বে চিকিৎসা সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে স্বামীকে। জেল হাসপাতালে কোনো চিকিৎসা ব‍্যবস্থাই নেই এবং তাঁকে এখনও টিকা দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।"

ট্রাইবাল অ‍্যাক্টিভিস্ট মিঃ স্বামী তাঁর আবেদনে আরো অভিযোগ করেছিলেন, জেলের বেশিরভাগ কর্মী, বিশেষ করে যাঁরা রান্নাঘরের দায়িত্বে রয়েছেন, তাঁরা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। অনেক বিচারাধীন বন্দিও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তা সত্ত্বেও RT-PCR টেস্ট করা হয়নি এখানে।

শনিবার বোম্বে হাইকোর্ট আগামী ৬ জুলাই পর্যন্ত স্ট‍্যান স্বামীকে বেসরকারি হাসপাতালে রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in