Farmers Protest: সরকার যেন ধৈর্য্যের পরীক্ষা না নেয় - হুঁশিয়ারি সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার

বুধবার সরকারকে সতর্ক করে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা জানিয়েছে, সরকার যেন তাঁদের ধৈর্য্যের পরীক্ষা না নেয়। দ্রুত তাঁদের সাথে কথা বলে দাবি মেনে নিক সরকার।
Farmers Protest: সরকার যেন ধৈর্য্যের পরীক্ষা না নেয় - হুঁশিয়ারি সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার
ফাইল ছবি এআইকেএস ফেসবুক পেজের সৌজন্যে

করোনা আতঙ্ক, প্রবল বৃষ্টি দিল্লি সীমান্তে আন্দোলনকারী কৃষকদের দুর্দশা কয়েকগুণ বাড়ালেও, নিজেদের দাবি থেকে এক চুলও নড়েননি তাঁরা। বুধবার সরকারকে সতর্ক করে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা জানিয়েছে, সরকার যেন তাঁদের ধৈর্য্যের পরীক্ষা না নেয়। দ্রুত তাঁদের সাথে কথা বলে দাবি মেনে নিক সরকার।

বিতর্কিত তিন কৃষি আইন বাতিল এবং ফসলের ন‍্যূনতম সহায়ক মূল্যের আইনি গ‍্যারান্টির দাবিতে গত ছয় মাস ধরে দিল্লির তিন সীমান্ত - টিকরি, সিঙ্ঘু এবং গাজীপুরে অবস্থান বিক্ষোভ করছেন দেশের লক্ষ লক্ষ কৃষক। করোনার ভ্রুকুটিও তাঁদের আন্দোলনে ভাঁটা ফেলতে পারেনি।

বুধবার সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার তরফ থেকে জারি করা এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "... কৃষকদের এই আন্দোলনে ৪৭০ জনেরও বেশি কৃষক শহীদ হয়েছেন এখনও পর্যন্ত। অনেক আন্দোলনকারীকে তাঁদের চাকরি, শিক্ষা বা কাজ ছাড়তে হয়েছে। এতো কিছু সত্ত্বেও সরকারের মনোভাব দেখিয়ে দিচ্ছে দেশের নাগরিক, 'অন্নদাতাদের' প্রতি কতটা অমানবিক ও উদাসীন তারা। যদি এই সরকার কৃষকদের কথা ভাবে এবং তাঁদের ভালো চায় তাহলে অবিলম্বে কৃষকদের সাথে আলোচনা শুরু করুক এবং তাঁদের দাবি মেনে নিক। সরকার যেন কৃষকদের ধৈর্য্যের পরীক্ষা না নেয়।"

আন্দোলন শুরুর পর থেকে এখনও পর্যন্ত আন্দোলনকারী সংগঠনগুলোর সাথে সরকার ১১ বার বৈঠকে বসেছে। কিন্তু উভয় পক্ষই নিজেদের দাবিতে অনড় থাকায় প্রতিবারই বৈঠক ব‍্যর্থ হয়েছে।

জানুয়ারি মাসে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে কৃষকদের লিখিতভাবে জানানো হয়েছিল ১২ থেকে ১৮ মাসের জন্য বিতর্কিত কৃষি আইন লাগু করা স্থগিত রাখবে সরকার। কিন্তু সরকারের এই দাবি প্রত‍্যাখান করেছেন কৃষকরা। তাঁরা কৃষি আইন পুরোপুরি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in