ফুলের গন্ধ শুঁকিয়ে দম্পতিকে বেহুঁশ করে স্বামীর হাত-পা বেঁধে স্ত্রীকে ধর্ষণ স্বঘোষিত 'চিল্কা বাবার'

ঝাড়ফুঁকের নাম করে মাঝেমধ্যেই দম্পতিকে ডাকতেন চিল্কা বাবা। ফুল শুঁকতে দিতেন। ফুলের গন্ধে জ্ঞান হারাতেন দম্পতি। সেই সুযোগে লাগাতার ধর্ষণের শিকার মহিলা।
ফুলের গন্ধ শুঁকিয়ে দম্পতিকে বেহুঁশ করে স্বামীর হাত-পা বেঁধে স্ত্রীকে ধর্ষণ স্বঘোষিত 'চিল্কা বাবার'
ছবি - প্রতীকী

ফুলের গন্ধ শুঁকিয়ে বেহুঁশ করে এক মহিলাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠলো স্বঘোষিত এক "বাবা"র বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের মাধেপুর জেলার আলমনগরে। এর আগেও একাধিকবার ওই মহিলাকে ধর্ষণ করেছেন অভিযুক্ত, যিনি এলাকায় চিল্কা বাবা নামে পরিচিত। কিন্তু এবার ধরা পড়ে যান তিনি।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই দম্পতি পূর্ণিয়া জেলার বাসিন্দা। বিয়ের পর দীর্ঘ বহুবছর সন্তান না হওয়ার কারণে মানসিকভাবে খুবই বিচলিত ছিলেন ওই মহিলা এবং ওনার স্বামী। সন্তান না হওয়ার বিষয়টি জানামাত্রই গ্রামের কোনো এক মহিলা তাঁদের চিল্কা বাবার কথা বলেন।

চিল্কা বাবার কাছে যাওয়ার পর সেই বাবা তাঁদের সন্তানধারণের জন্য যজ্ঞ করতে বলেন। যার জন্য ফুল আনতে বলেন। কথা মত দম্পতি ফুল এবং অন্যান্য পুজোর সামগ্রী নিয়ে হাজির হলে তাঁদের দুজনকে ফুল শুঁকতে বলেন বাবা। ফুল শোঁকার কিছুক্ষণের মধ্যেই অজ্ঞান হয়ে পড়েন দম্পতি।

অজ্ঞানতার সুযোগ কাজে লাগিয়ে অভিযুক্ত প্রথমে মহিলার স্বামীর হাত-পা বাঁধেন। তারপর মহিলাটিকে অন্য একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন। কিছুক্ষণের মধ্যে হুঁশ ফেরার পর যখন মহিলার স্বামী পুরো বিষয়টি বুঝতে পারেন, তখন হাতেনাতে ধরে ফেলেন চিল্কা বাবাকে। কিন্তু কোনোরকমে চম্পট দেয় চিল্কা বাবা। সাথে সাথে ওই দম্পতি থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন।

পুলিশ সূত্রে আরও জানা গেছে, অভিযুক্তের আসল নাম কৈলাস পাসোয়ান। ওই দম্পতি পুলিশকে জানিয়েছেন ঝাড়ফুঁক করার নাম করে মাঝেমধ্যেই তাঁদের আসতে বলতেন বাবা এবং ঝাড়ফুঁক করার পর দু’জনকেই ফুল শুঁকতে দিতেন। সেই ফুল শুঁকেই জ্ঞান হারাতেন ওই দম্পতি। এর পর মহিলাকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করতেন বাবা। কিন্তু বুধবার বিষয়টি হাতেনাতে ধরে ফেলেন মহিলার স্বামী। তারপর থেকেই পলাতক চিল্কা বাবা।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.