Bihar: বিনা শর্তে মুকেশ সাহানীর ভিআইপিকে নিজেদের দলের সঙ্গে মিশিয়ে দেবার প্রস্তাব আরজেডি-র

সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে বোচাহান কেন্দ্রে জয়লাভের পর রাষ্ট্রীয় জনতা দলের পক্ষ থেকে বিকাশশীল ইনসান পার্টির প্রধান মুকেশ সাহানীকে কোনও শর্ত ছাড়াই তাঁর দলকে RJD-র সঙ্গে মিশিয়ে দেবার প্রস্তাব দেওয়া হল।
Bihar: বিনা শর্তে মুকেশ সাহানীর ভিআইপিকে নিজেদের দলের সঙ্গে মিশিয়ে দেবার প্রস্তাব আরজেডি-র
ভিআইপি প্রধান মুকেশ সাহানীফাইল ছবি - মুকেশ সাহানী ভিআইপি পার্টি ফেসবুক পেজের সৌজন্যে

বিহারের সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে বোচাহান কেন্দ্রে জয়লাভের পর রাষ্ট্রীয় জনতা দলের পক্ষ থেকে বিকাশশীল ইনসান পার্টির প্রধান মুকেশ সাহানীকে কোনও শর্ত ছাড়াই তাঁর দলকে আরজেডি-র সঙ্গে মিশিয়ে দেবার প্রস্তাব দেওয়া হল। বর্তমানে আরজেডি প্রধান লালু প্রসাদ যাদবের সঙ্গে দেখা করার জন্য দিল্লীতে আছেন মুকেশ সাহানি।

গত ১৬ এপ্রিলের উপনির্বাচনে বোচাহান কেন্দ্রে বিজেপিকে হারিয়ে জয়লাভ করেছে আরজেডি। ভিআইপি বিধায়কের মৃত্যুতে এই আসন শূন্য হলেও এবারের নির্বাচনে এই আসনে তৃতীয় স্থান পেয়েছে ভিআইপি। যদিও বিজেপির পরাজয়ে নিজের উচ্ছ্বাস গোপন করেননি ভিআইপি প্রধান মুকেশ।

এর আগেও লালু প্রসাদ যাদব বেশ কয়েকবার জানিয়েছেন, যারা বিজেপির বিরুদ্ধে তাঁরা দলে স্বাগত। বিগত বিহার বিধানসভা নির্বাচনের মুখে আসন রফা নিয়ে মন কষাকষির জেরে বিরোধী জোট ছেড়ে এনডিএ-তে যোগ দেয় মুকেশ সাহানীর ভিআইপি এবং নির্বাচনে জোটসঙ্গী হিসেবে ৪টি আসনে জয়লাভ করে।

এই প্রসঙ্গে আরজেডি নেতা ভোলা যাদব জানিয়েছেন, "সাহানিকে দলে স্বাগত জানানো হয়েছে। তবে তা শর্তের ভিত্তিতে। তিনি যদি তার পার্টি ভিআইপিকে আরজেডির সঙ্গে মিশিয়ে দেন তবে আমরা তাকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত। এই মুহুর্তে তিনি আমাদের সাথে দর কষাকষির অবস্থানে নেই।"

সাহানি উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের সময় জানিয়েছিলেন, লালু প্রসাদ তাঁর হৃদয়ে বাস করেন। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে জামিনে মুক্ত থাকাকালীন তিনি দিল্লিতে লালু প্রসাদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন।

অনুমান করা হচ্ছে যে সাহানি সম্ভবত আরজেডি কোটা থেকে নিজের জন্য একটি এমএলসি আসন পেতে লালু প্রসাদের সাথে দেখা করতে চাইছেন। বিনিময়ে, তিনি ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময় আরজেডিকে সমর্থন করবেন। তার বর্তমান এমএলসি মেয়াদ, যা তিনি বিজেপি কোটার মাধ্যমে অর্জন করেছিলেন, জুন মাসে শেষ হচ্ছে।

উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের পরে, বিজেপি যেভাবে ভিআইপি-র তিনজন বিধায়ককে দলবদল ক্রিয়েছে এবং সাহানির কাছ থেকে মন্ত্রিত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে তাতে ক্ষুব্ধ মুকেশ সাহানী। রাজনৈতিক মহলের মতে, ভিআইপি নেতা এখন "প্রতিশোধের মেজাজে" রয়েছেন।

বোচাহান উপ-নির্বাচনে ২৯ হাজারের বেশি ভোট পেয়ে, ভিআইপি সফলভাবে বিজেপিকে তার বার্তা পৌঁছে দিয়েছে যে বিহারে নিষাদ রাজনীতি এখনও প্রাসঙ্গিক।

ভোলা যাদবের বিবৃতিতে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে, ভিআইপি জাতীয় মুখপাত্র রাজীব মিশ্র বলেছেন: "ভিআইপি বিহারের একটি স্বাধীন রাজনৈতিক দল এবং কারও সাথে দলকে মিশিয়ে দেবার প্রশ্নই আসে না। যদি অন্য রাজনৈতিক দলগুলির সাথে জোট করার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তবে, দলের কোর কমিটির সদস্যদের বৈঠকের পর আমাদের নেতা মুকেশ সাহানি সেই সিদ্ধান্ত নেবেন।”

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.