Bihar: উপনির্বাচনে বিজেপির পরাজয়ে প্রাক্তন জোটসঙ্গী ভিআইপি প্রধান মুকেশ সাহানীর কটাক্ষ

দলের পরাজয়কে নৈতিক জয় বললেন বিহারের VIP বিধায়ক ও পদচ্যুত মন্ত্রী মুকেশ সাহানী। উল্লেখ্য, বিহারের বোচাহান কেন্দ্রের সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে RJD প্রার্থীর কাছে পরাজিত হয়েছেন BJP প্রার্থী।
Bihar: উপনির্বাচনে বিজেপির পরাজয়ে প্রাক্তন জোটসঙ্গী ভিআইপি প্রধান মুকেশ সাহানীর কটাক্ষ
ভিআইপি প্রধান মুকেশ সাহানীফাইল ছবি - মুকেশ সাহানী ভিআইপি পার্টি ফেসবুক পেজের সৌজন্যে

দলের পরাজয়কে নৈতিক জয় বললেন বিহারের বিকাশশীল ইনসান পার্টির বিধায়ক ও পদচ্যুত মন্ত্রী মুকেশ সাহানী। উল্লেখ্য, বিহারের বোচাহান কেন্দ্রের সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে আরজেডি প্রার্থীর কাছে পরাজিত হয়েছেন বিজেপি প্রার্থী। এই কেন্দ্রেই ভিআইপি প্রার্থীও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ভিআইপি বিধায়ক মুসাফির পাসোয়ানের মৃত্যুতে এই আসন শূন্য হয়। উপনির্বাচনে রাজ্যের নীতিশ সরকারের জোটসঙ্গীর হাত থেকে যে আসন ছিনিয়ে নিয়েছে আরজেডি।

বোচাহান কেন্দ্রের উপনির্বাচনে আরজেডি প্রার্থী অমর কুমার পাসোয়ান পেয়েছেন ৮২,৫৬২ ভোট। বিজেপি প্রার্থী বেবী কুমারি পেয়েছেন ৪৫,৯০৯ ভোট এবং ভিআইপি প্রার্থী গীতা কুমারি পেয়েছেন ২৯,২৭৯ ভোট।

বেশ কিছুদিন ধরেই জোটসঙ্গী বিকাশশীল ইনসান পার্টির সঙ্গে বিজেপির সম্পর্ক তলানিতে। সাম্প্রতিক উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে মুকেশ সাহানীর ভিআইপি খোলাখুলি বিজেপির বিরোধিতা করে এবং ৫৩ আসনে আসনে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রার্থী দেয়। এদিন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় মুকেশ জানান, আমরা বোচাহান কেন্দ্রের মানুষদের ভিআইপি-র ওপর আস্থা রাখার জন্য ধন্যবাদ জানাই। আমরা জেতার জন্য লড়াই করেছিলাম যদিও ব্যর্থ হয়েছি। কিন্তু আমরা আরজেডি-র অমর পাসোয়ানকে এই জয়ের জন্য অভিনন্দন জানাই। এই আসনে যদিও আমাদের পরাজয় হয়েছে কিন্তু এটা আমাদেরই জয়।

তিনি আরও বলেন, বিজেপি এই আসনে প্রায় ৩৬,৬৫৩ ভোটে পরাজিত হয়েছে। রাজ্য বিজেপির নেতাদের হাতে এখনও সময় আছে। তাঁদের উচিৎ কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে ভুল না বোঝানো। আগামী ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির জন্য আরও বড়ো বিপর্যয় অপেক্ষা করছে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি সঞ্জয় জয়সোয়ালের পদত্যাগ করা উচিৎ।

প্রসঙ্গত, উত্তরপ্রদেশে বিজেপির বিরুদ্ধে ৫৩ প্রার্থী দাঁড় করানোয় মুকেশ সাহানির ওপর ক্ষুব্ধ হয় বিজেপি। মূলত তাঁদের অঙ্গুলি হেলনেই নীতিশ মন্ত্রীসভা থেকে ছাঁটাই হন ভিআইপি প্রধান মুকেশ সাহানি। যিনি বিহার বিধানসভা নির্বাচনে পরাজিত হলেও পরবর্তী বিধান পরিষদের নির্বাচনে জিতে বিধায়ক এবং মন্ত্রী হন। যদিও সম্পর্কের অবনতির পর বিজেপির পক্ষ থেকে মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারকে চিঠি লিখে জানানো হয়, মুকেশ সাহানী বা তাঁর দল আর এনডিএ-র অংশীদার নয়। তাই তাঁকে মন্ত্রিত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া উচিৎ। এর আগে ভিআইপি-র তিন বিধায়কই বিজেপিতে যোগ দেন।

২০২০ বিহার বিধানসভা নির্বাচনে নিজেদের কোটা থেকে ভিআইপি-কে ১১ টি আসন ছেড়ে দেয়। ভিআইপি ১১টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৪টিতে জয়ী হয়।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.