Andhra Pradesh: অমরাবতীতে কৃষকদের মহাপদযাত্রায় যোগ দিল বিজেপি

বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব প্রথমে এই বিষয়ে উদাসীন ছিলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ-র নির্দেশ অনুযায়ী কৃষকদের পদযাত্রায় অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
Andhra Pradesh: অমরাবতীতে কৃষকদের মহাপদযাত্রায় যোগ দিল বিজেপি
ফাইল চিত্র

একদিকে কৃষি আইন নিয়ে কৃষক নেতৃত্বের সাথে শাসক দলের টানাপড়েন, অন্যদিকে অন্ধ্রপ্রদেশে কৃষকদের মহাপদযাত্রায় অংশ নিলেন বিজেপি নেতারা। ক্ষমতাসীন ওয়াইএসআর কংগ্রেসের প্রস্তাবিত ত্রি-রাজধানী শহরের বিরোধিতা করে অমরাবতী অঞ্চলের কৃষকরা এই পদযাত্রার আয়োজন করেছেন। কৃষকদের এই আন্দোলনে সংহতি জানালো বিজেপির কয়েকজন নেতা।

প্রতিবাদ মিছিলে অংশগ্রহণকারী নেতাদের মধ্যে রয়েছেন বিজেপির জাতীয় সাধারণ সম্পাদক দগ্গুবতী পুরন্দরেশ্বরী, রাজ্য ইউনিটের সভাপতি সোমু বীররাজু, সাংসদ সুজানা চৌধুরী এবং প্রাক্তন রাজ্য ইউনিট সভাপতি কান্না লক্ষ্মীনারায়ণ। বিজেপি ক্যাডাররাও বিপুল সংখ্যক এই আন্দোলনে যোগ দিচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, অন্ধ্রপ্রদেশ তৈরি হওয়ার পর অমরাবতীকে রাজধানী হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা করেছিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু। তারপর পালাবদল হয় অন্ধ্রপদেশে। নতুন মুখ্যমন্ত্রী হন জগনমোহন রেড্ডি। তিনি বিশাখাপত্তনমে নিজের সচিবালয় গড়তে চান। অমরাবতীতে থাকবে বিধানসভা। এবং বিচারবিভাগীয় যাবতীয় কাজকর্মীর জন্য তিনি কুর্নুলকে বেছে নেন। অর্থাৎ রাজ্যের তিনটি রাজধানী গড়তে চান তিনি।

অমরাবতী অঞ্চলের কৃষকরা রাজধানী শহরকে বিচ্ছিন্ন করার বিরুদ্ধে ৪৫ দিনের পদযাত্রার আয়োজন করেছিলেন। প্রায় ২০ দিন পর বিজেপি এই পদযাত্রায় অংশগ্রহণ করেছে। সূত্রের খবর, বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব প্রথমে এই বিষয়ে উদাসীন ছিলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ-র নির্দেশ অনুযায়ী কৃষকদের পদযাত্রায় অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

দলের নেতা পুরন্দরেশ্বরী এবং বীররাজু অমরাবতী কৃষকদের আন্দোলনে তাঁদের দলের সমর্থন ঘোষণা করে বলেন যে, বিজেপি অমরাবতীকে রাজ্যের একমাত্র রাজধানী হিসাবে দেখতে চায়। উল্লেখ্য, অমরাবতীতে কৃষকদের 'মহাপদযাত্রা' ১ নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছে। রাজ্যের রাজধানীকে তিন ভাগে ভাগ করার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে ৬৫০ দিনেরও বেশি সময় ধরে তাঁরা প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন।

অমরাবতী পরিরক্ষণা সমিতি এবং অমরাবতী জয়েন্ট অ্যাকশন কমিটি (জেএসি) এই পদযাত্রার আয়োজন করছে। অংশগ্রহণকারীরা তিরুমালার শ্রী ভেঙ্কটেশ্বর মন্দিরে পৌঁছানোর জন্য ৪৫ দিন ধরে প্রতিদিন ১০-১৫ কিমি হেঁটে যাচ্ছেন। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি তিরুপতি মন্দিরে গিয়ে এই পদযাত্রা শেষ হবে। গুন্টুর, প্রকাশম, নেলোর এবং চিত্তুর জেলাগুলির মধ্যে দিয়ে এই পদযাত্রা যাওয়ার সময় ৭০টি গ্রাম অতিক্রম করবে।

Andhra Pradesh: অমরাবতীতে কৃষকদের মহাপদযাত্রায় যোগ দিল বিজেপি
কৃষি আইনে নতিস্বীকার, এবার CAA, UAPA, ৩৭০ ধারা নিয়ে ক্রমশই চাপ বাড়ছে মোদী সরকারের উপর

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in