Karnataka: শাহ উদ্যোগে মন্ত্রিসভায় জায়গা পাচ্ছেন যৌন হেনস্থায় অভিযুক্ত!

যৌন হেনস্থার অভিযোগ ওঠায় রাজ্যের মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছিলেন রমেশ জারকিহোলি। এছাড়া, গত এপ্রিল মাসে এক কন্ট্রাকটরের আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ দায়েরের পর পদত্যাগ করেছিলেন এস ঈশ্বরাপ্পা।
অমিত শাহ
অমিত শাহ ছবি সংগৃহীত

কর্ণাটকে বিধানসভা নির্বাচনের এক বছরেরও কম সময় বাকি। তার আগেই অন্তর্দ্বন্দ্ব মিটিয়ে দলকে সংগঠিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে বিজেপি। আসরে নেমেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। দলের দুই বিক্ষুব্ধ বিধায়কের ক্ষোভ মেটাতে রাজ্য মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণের অনুমোদন দিয়েছেন তিনি।

যৌন হেনস্থার অভিযোগ ওঠায় রাজ্যের মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছিলেন রমেশ জারকিহোলি। তিনি ইয়েদুরাপ্পা মন্ত্রিসভার জলসম্পদ মন্ত্রী ছিলেন। এছাড়া, গত এপ্রিল মাসে এক কন্ট্রাকটরের আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ দায়েরের পর বাসবরাজ বোম্মাইয়ের মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছিলেন কে এস ঈশ্বরাপ্পা। তিনি কর্ণাটকের গ্রামোন্নয়ন ও পঞ্চায়েতি রাজ মন্ত্রী ছিলেন। এই দুই বিজেপি নেতা তথা বিধায়ককে সাথে নিয়েই আসরে নেমেছেন অমিত শাহ।

শনিবার, ২০২২ সালের শেষ দিনে দলের বুথ স্তরের কর্মীদের নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকও করেছেন তিনি। জানা যাচ্ছে, এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরাগা জ্ঞানেন্দ্র, বিজেপির সাধারণ সম্পাদক অরুণ সিং, জাতীয় সাধারণ সম্পাদক বিএল সন্তোষ এবং জাতীয় সম্পাদক সিটি রবি।

এর আগে, শুক্রবার, ওল্ড মাইসুরুর মান্ড্যা জেলার মাদুর তালুকে মেগা ডেইরি প্ল্যান্টের উদ্বোধন করেন শাহ। এই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এবং জেডি (এস) প্রধান এইচডি দেবগৌড়াও।   

প্রসঙ্গত, ওল্ড মাইসুরু হল JD(S) ও কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি। সেখানে প্রবেশের জন্য ধারাবাহিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিজেপি।

এদিনের অনুষ্ঠানে হিন্দুত্বের তাস খেলে কংগ্রেসকে আক্রমণ করেন শাহ। তিনি বলেন, '২০১৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন সিদ্দারামাইয়া। তিনি নিষিদ্ধ ইসলামি সংগঠন পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়ার (PFI) বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার করেছিলেন। তবে, রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় ফেরার পরেই পিএফআই-কে নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং এই সংগঠনের নেতাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।'

তিনি বলেন, 'জেডি (এস) এবং কংগ্রেসকে অনেক সুযোগ দেওয়া হয়েছে। তারা পর্যায়ক্রমে রাজ্যে ক্ষমতায় এসেছে। এবার, মান্ডিয়া এবং মাইসুরুতেও পদ্ম ফুটবে। আমরা সংখ্যাগরিষ্ঠতা জিতব।'

শনিবারও, দুই বিক্ষুদ্ধ বিজেপি নেতাকে পাশে নিয়ে অমিত শাহ বলেন, 'এ রাজ্যে কংগ্রেস জিতলে এটি 'দিল্লির এটিএম' (Delhi's ATM) হয়ে যাবে। আর যদি জেডি(এস) জেতে, তাহলে এই রাজ্য একটি 'পরিবারের এটিএম' (family ATM) হয়ে যাবে।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in