বাস্কেটবল খেলার পর বিয়ে বাড়িতে জমিয়ে নাচ প্রজ্ঞা ঠাকুরের, ভিডিও ভাইরাল হতেই কটাক্ষ কংগ্রেসের

কংগ্রেস নেতা লিখেছেন, "আমাদের ভোপালের সাংসদ বোন প্রজ্ঞা ঠাকুরকে যখন বাস্কেট বল খেলতে দেখি, কারো সাহায্য ছাড়াই হাঁটতে বা এইভাবে খুশিতে নাচতে দেখি, তখন আমাদের খুব খুশি হয়...?"
বাস্কেটবল খেলার পর বিয়ে বাড়িতে জমিয়ে নাচ প্রজ্ঞা ঠাকুরের, ভিডিও ভাইরাল হতেই কটাক্ষ কংগ্রেসের
নাচছেন প্রজ্ঞা ঠাকুরভিডিও থেকে নেওয়া

কিছুদিন আগে কোর্ট দাপিয়ে বাস্কেটবল খেলতে দেখা গিয়েছিল প্রজ্ঞা ঠাকুরকে। তাঁর খেলার সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ব‍্যাপক ভাইরাল হয়েছিল। এবার বিয়েবাড়িতে জমিয়ে নাচতে দেখা গেল বিজেপি সাংসদকে।

গেরুয়া বসনধারী সাংসদের নাচের ভিডিও ভাইরাল হতেই তাঁকে আক্রমণে নেমেছে কংগ্রেস। কংগ্রেসের কটাক্ষ, স্বাস্থ্যের কারণ দেখিয়ে আদালতে জামিন পাওয়া প্রজ্ঞা ঠাকুর কারো সহযোগিতা ছাড়াই নাচছে দেখে ভীষণ আনন্দ হচ্ছে। প্রসঙ্গত, মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলার প্রধান অভিযুক্ত প্রজ্ঞা ঠাকুর স্বাস্থ্যের কারণ দেখিয়ে আদালতে জামিন পেয়েছেন।

ভোপালে একাধিক দরিদ্র পরিবারের মেয়েদের বিয়ের ব‍্যবস্থা করেছেন সেখানকার সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুর। সেই বিবাহ অনুষ্ঠানেই পা তুলে জমিয়ে নাচতে দেখা গেছে তাঁকে। লোকজনদের নাচে যোগদানের জন্য অনুরোধ করতেও দেখা গেছে তাঁকে।

পেশায় দিনমজুর এক কনের বাবা সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, "আমার মনে হচ্ছে আমি আর একবার জীবন পেলাম। আমি খুব গরীব। মেয়েদের বিয়ে দেওয়ার জন্য আমার কাছে যথেষ্ট টাকা ছিল না। কিন্তু প্রজ্ঞা ঠাকুর আমাদের সাহায্য করেছেন। আমি মায়ের (ভগবান) কাছে প্রার্থনা করবো ওনার দীর্ঘায়ুর জন্য। আমি খুব খুশি এবং কৃতজ্ঞ।"

তবে কংগ্রেস এই ভিডিওকে হাতিয়ার করে সাংসদকে আক্রমণ করা শুরু করেছে। মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেসের মুখপাত্র নরেন্দ্র সালুজা নিজের ট‍্যুইটারে বিজেপি সাংসদের নাচের ভিডিও শেয়ার করে লিখেছেন, "আমাদের ভোপালের সাংসদ বোন প্রজ্ঞা ঠাকুরকে যখন বাস্কেট বল খেলতে দেখি, কারো সাহায্য ছাড়াই হাঁটতে বা এইভাবে খুশিতে নাচতে দেখি, তখন আমাদের খুব খুশি হয়...?"

এর আগে ১ জুলাই বিজেপি নেত্রীর বাস্কেট বল খেলার ভিডিও ট‍্যুইটারে পোস্ট করে তিনি লিখেছিলেন, "ভোপালের সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুরকে এতোদিন আমরা হুইল চেয়ারেই দেখে এসেছি কিন্তু আজ ওনাকে ভোপালের স্টেডিয়ামে বাস্কেটবল হাতে দেখে খুব খুশি হয়েছি। এতোদিন আমরা জানতাম কোনো আঘাতের কারণে উনি ঠিকভাবে দাঁড়াতে এবং হাঁটতে পারেন না। ভগবান ওনাকে সবসময় এরকম সুস্থ রাখুন।"

প্রায়ই বিতর্কিত মন্তব্য করে দলকে অস্বস্তিতে ফেলা প্রজ্ঞা ঠাকুর ২০১৭ সালে শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে আদালতে জামিন পান। ২০০৮ সালে মালেগাঁওয়ে একটি মসজিদের সামনে বিস্ফোরণের ঘটনার মূল অভিযুক্ত ছিলেন তিনি। এই বিস্ফোরণে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল এবং ১০০ জনের বেশি ব‍্যক্তি আহত হয়েছিলেন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in