দলীয় বৈঠকে গরহাজির, কেরল বিজেপির কপালে ভাঁজ ফেলছেন শোভা সুরেন্দ্রন

দলীয় বৈঠকে গরহাজির, কেরল বিজেপির কপালে ভাঁজ ফেলছেন শোভা সুরেন্দ্রন
শোভা সুরেন্দ্রনফাইল ছবি সংগৃহীত

দলীয় বৈঠকেই হাজির না থেকে কেরল বিজেপির অন্দরে চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন শোভা সুরেন্দ্রন। রাজ্য বিজেপির দোর্দন্ডপ্রতাপ নেত্রী হিসেবেই পরিচিত শোভা। রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ও সর্বভারতীয় সদস্য পদেও তিনি রয়েছেন। ত্রিশূরে রাজ্য বিজেপির দায়িত্বে থাকা সিপি রাধাকৃষ্ণণ-সহ তাবড় নেতারা দলের বৈঠকে হাজির থাকলেও অনুপস্থিত ছিলেন শোভা।

কে সুরেন্দ্রনকে দলীয় সভাপতি হিসেবে নিয়োগ করার পর থেকেই দু'জনের মধ্যে এই দূরত্ব লক্ষ্য করা যাচ্ছে বলে সূত্রের খবর। দু'জনেই একে অপরের বিপরীত কার্যকলাপে নিযুক্ত হচ্ছেন। ২০২০ সালের মার্চ মাসে শোভাকে দলের সহ-সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত করা হয়েছিল। সেই সময় সভাপতির চেয়ার সামলাচ্ছিলেন সুরেন্দ্রন। তাঁকে সহ-সভাপতি পদ দেওয়ার পর এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি শোভা। বরং তিনি এই পদ স্বীকার করতে অস্বীকার করেন।

এই বিষয়ে শোভা বলেন, তাঁর কাছ থেকে দলের সভাপতির পদ কেড়ে নিয়ে তাঁর অবনমন করা হয়েছে। যদিও সুরেন্দ্রন তাঁর মেন্টর ছিলেন, তাও কেন্দ্রীয় বিদেশ প্রতিমন্ত্রী তথা বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি ভি মুরলীধরণ এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি, একপ্রকার রাজ্য আরএসএস নেতৃত্বের চাপে পড়েই।

ত্রিশূরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সুরেন্দ্রন জানান, 'শোভা আমাদের দলে্রই অংশ। কিছু ব্যক্তিগত কারণের জন্য তিনি এই বৈঠকে হাজির হতে পারেননি।'

শোভা পালাক্কাড বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির টিকিট নিয়ে জেতার পর আতিঙ্গাল লোকসভা আসনে ২০১৯ সালের নির্বাচনে বিজেপির ভোট অনেকটাই বাড়ান। খুব ভালো বক্তৃতা দিতে পারেন তিনি। তাঁর কারণেই রাজ্যে দলের ভোটের পরিমাণ অনেকটা বেড়েছিলো বলে মনে করেন বিজেপির একাংশ।

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in