শ্রীলঙ্কায় দ্রুত গতিতে বাড়ছে অনাহারে থাকা মানুষের সংখ্যা, সতর্কবার্তা রাষ্ট্রসংঘের

এক প্রতিবেদনে WPF জানিয়েছে, শ্রীলঙ্কার অবস্থা খুবই সঙ্গীন। চলমান অর্থনৈতিক সংকটকালে পাঁচ পরিবারের মধ্যে চারটি পরিবারের অনাহারে দিন কাটছে। এই মাত্রা দ্রুত বাড়ছে।
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

এমনিতেই খাদ্যমূল্য আকাশছোঁয়া। মুদ্রাস্ফীতির জেরে হাঁসফাঁস করছে শ্রীলঙ্কা। দু’বেলা পেট ভরে খেতে হিমশিম খাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। তবে, পরিস্থিতি আগামীতে আরও ভয়াবহ হতে চলেছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (WPF)।

সম্প্রতি, এক প্রতিবেদনে WPF জানিয়েছে, শ্রীলঙ্কার অবস্থা খুবই সঙ্গীন। চলমান অর্থনৈতিক সংকটকালে পাঁচ পরিবারের মধ্যে চারটি পরিবারের অনাহারে দিন কাটছে। এই মাত্রা দ্রুত বাড়ছে।

সম্প্রতি, শ্রীলঙ্কার হাল ফেরাতে নতুন প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব নিয়েছেন রনিল বিক্রমাসিংহে। কিন্তু, দেশের অর্থনৈতিক সংকট সমাধানে এখনও উল্লেখযোগ্য কোনও পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি তাঁকে। বরং পরিস্থিতি দিন দিন অবনতির দিকেই যাচ্ছে। সেই চিত্রই উঠে এসেছে WPF-এর রিপোর্টে।

এর মধ্যেই WPF-এর এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের পরিচালক জন আইলিয়েফ সতর্ক বার্তা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি সামনের কয়েক সপ্তাহে আরও অবনতি হতে পারে।

শ্রীলঙ্কায় দু’দিনের সফরে এসেছিলেন জন আইলিয়েফ। সফর শেষে তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কার ‘অসহায়’ ৩.৪ মিলিয়ন মানুষের পাশে দাড়ানো WPF-এর কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। তিনি জানান, আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হল জীবন রক্ষাকারী খাবার ও পুষ্টি সহায়তা পরিবারগুলোর কাছে পৌঁছে দেওয়া। আমাদের এই পদক্ষেপের কেন্দ্রে থাকবে শিশু এবং নারীরা।

এর আগে, গত আগস্টে WPF এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, শ্রীলঙ্কার ৬.৩ মিলিয়ন মানুষ খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এবং প্রায় ২২ মিলিয়ন জনসংখ্যার মধ্যে ৬.৭ মিলিয়ন মানুষ অর্থ সংকটে ভুগছেন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in