সৌদি আরবকে অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র দিচ্ছে আমেরিকা, উদ্দেশ্য ইরানকে চাপে রাখা!

হোয়াইট হাউজ সৌদিকে অত্যাধুনিক এআইএম-১২০সি মাঝারি পাল্লার মিসাইল বিক্রি করতে চলেছে। আকাশে হামলা চালাতে পারে, এরকম ২৮০টি ক্ষেপণাস্ত্র প্রায় ৬৫০ মিলিয়ন ডলার দিয়ে কিনবে রিয়াধ।
সৌদি আরবকে অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র দিচ্ছে আমেরিকা, উদ্দেশ্য ইরানকে চাপে রাখা!
ছবি - প্রতীকী

রিয়াধকে ড্রোন হামলা থেকে বাঁচানোর উদ্দেশ্যে বড়ো পদক্ষেপ করতে চলেছে আমেরিকা। সৌদি আরবকে অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র দেওয়া হবে। বৃহস্পতিবার এমনটাই ঘোষণা করেছে মার্কিন বিদেশ দফতর। যদিও বিশ্লেষকরা ভিন্ন মত পোষণ করেছেন। তাঁদের বক্তব্য, ইরানকে নজরে রেখেই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা এএফপি সূত্রে খবর, হোয়াইট হাউজ সৌদিকে অত্যাধুনিক এআইএম-১২০সি মাঝারি পাল্লার মিসাইল বিক্রি করতে চলেছে। আকাশে হামলা চালাতে পারে, এরকম ২৮০টি ক্ষেপণাস্ত্র প্রায় ৬৫০ মিলিয়ন ডলার দিয়ে কিনবে রিয়াধ। প্রায় ১২ ফুট লম্বা ক্ষেপণাস্ত্রটি ১৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত হামলা চালাতে পারে।

আরও জানা গিয়েছে, সৌদি যুদ্ধবিমানগুলি হামলাকারী ড্রোন ধ্বংস করার উদ্দেশ্যেই এই হাতিয়ার ব্যবহার করবে। মার্কিন অধিকারিকদের অভিযোগ, ইয়েমেনের হাউথি বিদ্রোহীরা ইরানের থেকে ড্রোন পাচ্ছে। তার জেরে হাউথি বিদ্রোহীরা শক্তিশালী হয়ে উঠছে। তারা সৌদি আরবের তেল শোধনাগারগুলিতে হামলা চালাচ্ছে।

এবার পরিস্থিতি আরও জটিল হয়েছে হাউথিদের লাগাতার হামলায়। বেশ কয়েক বছর মধ্য প্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ ইরাক, কুয়েত, জর্ডন ও সৌদি আরবে ‘প্যাট্রিয়ট মিসাইল ডিফেন্স সিস্টেম’ মোতায়েন রেখেছে আমেরিকা। আছে ‘থার্ড মিসাইল সিস্টেম’ও।

সৌদি আরবের নেতৃত্বে ইয়েমেনে ইরানের সমর্থিত হাউথি বিদ্রোহীদের সঙ্গে লড়াই করছে মিত্রবাহিনী অর্থাৎ জর্ডন, কাতার ও সুদানের সেনারা। এই লড়াইয়ে দুই পক্ষেরই যথেষ্ট ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in