সুচি-র হেপাজত বাড়ল ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত, নেত্রীর মুক্তির দাবিতে উত্তাল মায়ানমার

সুচি-র হেপাজত বাড়ল ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত, নেত্রীর মুক্তির দাবিতে উত্তাল মায়ানমার
মান্দালয়তে সু চি-র মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভফু উইন্ট মে-র ট্যুইটার থেকে

মায়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী আং সান সুচির হেপাজতের মেয়াদ বাড়াল সে দেশের সেনা নায়করা। সেনার হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর আজ পর্যন্তই হেপাজত ছিল সুচি-র। কিন্তু এবার তাঁর হেপাজত ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। উল্লেখ্য, সেনা অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে ও সুচি-র মুক্তির দাবিতে রাস্তায় ক্রমাগত প্রতিবাদ করে চলেছেন সে দেশের মানুষ।

সুচি-র দলীয় আইনজীবী কিন মং জ এদিন নেপিদ-তে আদালতের বাইরে সাংবাদিকদের জানান, সুচিকে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জেল হেপাজতে রাখা হবে। এদিকে সুচির হেপাজতের মেয়াদ বাড়ার খবর প্রকাশ্যে আসতেই সেনার বিরুদ্ধে আরও খেপে গিয়েছে দেশের স্বাধীনতাকামী মানুষ। পুনরায় দেশের নির্বাচিত সরকার ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ দেখাচ্ছেন বিভিন্ন শহরের মানুষরা।

ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করার পাশাপাশি বড় শহরগুলোতে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে রবিবার রাত থেকে রাস্তায় নেমে পড়েছেন মানুষ। সোমবার মায়ানমারজুড়ে প্রতিবাদ আন্দোলন চলছে। দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্ডালার রাস্তায় হাজারো ইঞ্জিনিয়াররা নেমে স্লোগান দিতে থাকেন, 'ফ্রি আওয়ার লিডার', 'কারা বিচারের জন্য রয়েছেন?' এবং 'বেআইনিভাবে মাঝরাতে গ্রেপ্তার করা বন্ধ করুন।'

ইয়ঙ্গনেও ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ও সেসার গাড়ি রাস্তায় নামায় প্রতিবাদকারীদের ভিড় অনেকটাই কম দেখতে পাওয়া যায়। মায়ানমার বিল্ডিংয়ে সেন্ট্রাল ব্যাংকের বাইরে সেনা অভ্যুত্থান বিরোধী হাজারো মানুষের ভিড় দেখতে পাওয়া যায়। যদিও সেখানে গাড়ি ভর্তি সেনা, রায়ট পুলিশ, জলকামানের ট্রাক এবং সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। যাতে আন্দোলনকারীদের আটকে রাখা যায়।

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in