সার্চ ইঞ্জিন হিসাবে শীর্ষে থাকতে ‘বিলিয়ন’ ডলার ছড়িয়েছে Google: মার্কিন বিচার বিভাগ

প্রতিবছর অ্যাপল, স্যামসাং-র মতো বৃহৎ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ১০০ কোটি (বিলিয়ন) মার্কিন ডলার দেয় গুগলের পরিচালক সংস্থা অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেটেড।
ছবি - প্রতীকী
ছবি - প্রতীকী

বিশ্বের ১ নম্বর সার্চ ইঞ্জিন - এই তকমা ধরে রাখার জন্য অবৈধ চেষ্টা চালিয়েছে গুগল (Google)। এ জন্য প্রতিবছর অ্যাপল, স্যামসাং-এর মতো বৃহৎ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ১০০ কোটি (বিলিয়ন) মার্কিন ডলার দিয়েছে গুগলের পরিচালক সংস্থা অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেটেড। সম্প্রতি, মার্কিন আদালতে গুগলের বিরুদ্ধে এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ এনেছেন মার্কিন বিচার বিভাগের আইনজীবী (DOJ) কেনেথ ডিন্টজার (Kenneth Dintzer)।

খোদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের পক্ষ থেকে উত্থাপিত অভিযোগে দাবি করা হয়েছে, 'বেশিরভাগ ওয়েব ব্রাউজারে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সকল মোবাইল ফোনে নিজেদের সার্চ ইঞ্জিনকে 'ডিফল্ট' বা 'পূর্ব নির্ধারিত' করে রাখছে গুগল। এ জন্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলিকে 'বিপুল অর্থ' প্রদান করা হয়েছে।'

এর ফলে, অন্য কোনো সার্চ ইঞ্জিন গুগলের বিপরীতে নিজেদের বাজার বড় করতে পারছে না। একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করেছে গুগল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যান্টি-ট্রাস্ট আইন অনুযায়ী এমন কর্মকাণ্ড অবৈধ। তাই গুগলের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছে মার্কিন বিচার বিভাগ।

ওয়াশিংটনের এক আদালতে বিচারক অমিত মেহতাকে শুনানি চলাকালীন কেনেথ বলেন, 'ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হওয়ার জন্য বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করে গুগল।' এইসময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন অ্যান্টি- ট্রাস্ট্রের কর্মকর্তারা।

এই মামলার মূল বিচারপ্রক্রিয়া আগামী বছর শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। তবে গত বৃহস্পতিবার এই মামলার সব পক্ষই গুগলের ব্যবসার বিষয়ে নিজেদের মতামত তুলে ধরেছে।

জানা যাচ্ছে, বিদায়কালের কিছু আগে টেক জায়ান্টদের ক্ষমতায় লাগাম টানার 'ঐতিহাসিক' চেষ্টা চালান প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর সরকারের আমলেই গুগল অ্যান্টিট্রাস্ট মামলা দায়ের হয়। সেই মামলার শুনানি এখন বাইডেন আমলে শুরু হয়েছে।

শুনানিতে গুগলের আইনজীবি জন শ্মিডটলিন (John Schmidtlein) বলেন, 'বিচার বিভাগের আইনজীবী ও সরকার এখন মার্কেট নিয়ে ভুল ভাবছেন। তাঁরা মাইক্রোসফ্ট কর্পোরেশনের বিং (Bing) এবং ডাকডাকগোর (DuckDuckGo) মতো ছোট সার্চ ইঞ্জিনকে খুব কম গুরুত্ব দেন। আসলে, গুগলকেও কয়েক ডজন কোম্পানির প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখোমুখি হতে হয়।

তিনি বলেন, বাইটড্যান্স লিমিটেডের টিকটক, মেটা প্ল্যাটফর্ম, অ্যামাজন সহ অনেক সাইট আছে, যেখানে গ্রাহকরা তথ্য অনুসন্ধান করতে যান।

ছবি - প্রতীকী
ইউক্রেনকে অস্ত্র জোগান আমেরিকা সহ পশ্চিমী দেশগুলির - ফুলেফেঁপে উঠছে অস্ত্র ব্যবসায়ীরা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in