Ukraine Crisis: বিডেনের ছেলের অর্থলগ্নী সংস্থার টাকায় ইউক্রেনে বায়োল্যাব - চাঞ্চল্যকর অভিযোগ রাশিয়ার
জো বিডেন এবং তাঁর ছেলে হান্টারফাইল ছবি সংগৃহীত

Ukraine Crisis: বিডেনের ছেলের অর্থলগ্নী সংস্থার টাকায় ইউক্রেনে বায়োল্যাব - চাঞ্চল্যকর অভিযোগ রাশিয়ার

রাশিয়ার সূত্রে দাবি করা হয়েছে যে ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড রোজমন্ট সেনেকার পরিচালক বর্তমানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বিডেনের ছেলে হান্টার। যারা ইউক্রেনে পেন্টাগনের সামরিক জৈবিক কর্মসূচিতে অর্থ বিনিয়োগ করেছে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে দাবি করা হয়েছে যে ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড রোজমন্ট সেনেকার পরিচালক বর্তমানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বিডেনের ছেলে হান্টার। যে সংস্থা ইউক্রেনে পেন্টাগনের সামরিক জৈবিক কর্মসূচিতে অর্থ বিনিয়োগ করেছে। এই অর্থের পরিমাণ কমপক্ষে ২.৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনীর রেডিয়েশন, কেমিক্যাল ও বায়োলজিক্যাল ডিফেন্স ফোর্স-এর প্রধান ইগর কিরিলোভকে উদ্ধৃত করে একথা জানিয়েছে জিংহুয়া সংবাদসংস্থা।

ইউএস এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট, জর্জ সোরোস ফাউন্ডেশন, এবং সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনও এই প্রোগ্রামগুলির অর্থ বিনিয়োগ ও উন্নয়নে জড়িত ছিল বলেও তিনি দাবি করেছেন।

তিনি জানান, "সাম্প্রতিক প্রাপ্ত নথি থেকে মার্কিন সরকারী সংস্থা এবং ইউক্রেনীয় বায়োলজিক্যাল সংস্থার মধ্যে আলোচনার বিষয়ে আমরা জানতে পেরেছি।"

রাশিয়ান সামরিক আধিকারিক আরও জানিয়েছেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কাছে স্বীকৃত তথ্যপ্রমাণ রয়েছে, যা থেকে প্রমাণিত হয় অন্তত ৩০টি ইউক্রেনীয় পরীক্ষাগার সামরিক জৈবিক কার্যকলাপে জড়িত ছিল।

কিরিলোভের মতে, ইউক্রেন থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রদের কাছে ১৬,০০০ জৈবিক নমুনা রপ্তানি করা হয়েছে।

উদাহরণ স্বরূপ তিনি বলেন, হান্টাভাইরাসের অ্যান্টিবডির প্রাদুর্ভাব পর্যালোচনার জন্য লভিভ, খারকভ, ওডেসা এবং কিয়েভের সার্ভিসম্যানদের কাছ থেকে ৪ হাজার রক্তের নমুনা নেওয়া হয়েছিল।

তাঁর মতে "সাধারণ সংক্রমণমুক্তির এই বৃহৎ আকারের স্ক্রীনিং সম্ভবত নির্দিষ্ট অঞ্চলের জনসংখ্যার জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক বায়োলজিক্যাল এজেন্ট বাছাই করার জন্য করা হয়েছিল।"

তিনি আরও বলেন, ইউক্রেন থেকে বিপজ্জনক প্যাথোজেন এবং তাদের পরিবহনকারীও রপ্তানি করা হয়েছিল। যদিও মার্কিন সরকার এই দাবির বিষয়ে এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.